কুমিল্লার টানা পঞ্চম জয়, টানা পাঁচ হার খুলনার

আবারও সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন তাওহিদ হৃদয়, তবে অপরাজিত ৯১ রানে সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাকে

বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে লক্ষ্যটা হাতের নাগালেই ছিল কুমিল্লা ভিক্টরিয়ান্সের। এরপর লক্ষ্য তাড়ায় তাওহিদ হৃদয়ের দুর্দান্ত এক ইনিংস। দারুণ সঙ্গ দেন জাকের আলীও। তাতে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে সহজ জয় পেয়েছে লিটন দাসের দল। টানা পঞ্চম জয়ে যৌথভাবে শীর্ষে উঠে এলো তারা। অন্যদিকে টানা চার জয়ের পর টানা পাঁচ ম্যাচ হারল খুলনা।

বুধবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে খুলনা টাইগার্সকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে কুমিল্লা ভিক্টরিয়ান্স। প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৬৪ রান করে খুলনা। জবাবে ২১ বল বাকি থাকতেই লক্ষ্যে পৌঁছায় গতবারের চ্যাম্পিয়নরা।  

এই জয়ে নয় ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে যৌথভাবে রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে শীর্ষে উঠল কুমিল্লা। সমান নয় ম্যাচে সমান ১৪ পয়েন্ট তাদেরও। তবে রানরেটে এগিয়ে রয়েছে তারা। অন্যদিকে নয় ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে রয়েছে খুলনা। 

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) এবার প্রথম সেঞ্চুরিটা করেছিলেন তাওহিদ। এদিনও তিন অঙ্কের দিকেই ছুটছিলেন তিনি। লক্ষ্যটা আরেকটু বড় হলে হয়তো পেয়েও যেতে পারতেন। তবে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ৯১ রানে সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাকে। ৪৭ বলে সমান ৭টি করে চার ও ছক্কায় এ রান করেন এই তরুণ।

তবে রান তাড়ায় নেমে দলীয় ৩ রানেই অধিনায়ক লিটনকে হারায় কুমিল্লা। আগের ম্যাচে রানের ফেরার ইঙ্গিত দিলেও এদিন ফিরেছেন ব্যক্তিগত ২ রানেই। এরপর উইকেটে নামেন তাওহিদ। হাল ধরেন আরেক ওপেনার উইল জ্যাকসের সঙ্গে। তবে ৪১ রানের জুটি গড়েই মুকিদুল ইসলামের শিকার হন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান। ১০ বলে ১৮ রান করেন তিনি।

এরপর খুব বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি জনসন চার্লসও। ব্যক্তিগত ১৩ রানে ফিরেছেন নাহিদ রানার বলে। এরপর জাকেরের সঙ্গে তাওহিদের সেই জুটি। চতুর্থ উইকেটে অবিচ্ছিন্ন ৮৪ রানের জুটি গড়ে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন এ দুই ব্যাটার। ৩১ বলে ৪০ রানে অপরাজিত থাকেন জাকের। 

এর আগে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামে খুলনা। দলের প্রায় সব ব্যাটারই সেট হয়েছেন উইকেটে। কিন্তু ইনিংস লম্বা করতে পারেননি কেউই। তবে ব্যাটারদের ছোট ছোট ইনিংসে গড়ে ওঠে ছোট ছোট জুটি। তাতে লড়াকু পুঁজিই পায় দলটি।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৬ রানের ইনিংস খেলেন এভিন লুইস। ২০ বলে ৩টি চার ও ২টি ছক্কায় এ রান করেন তিনি। আফিফ হোসেন করেন ২৯ রান। এছাড়া মাহমুদুল হাসান জয়ের ব্যাট থেকে আসে ২৮ রান।

কুমিল্লার পক্ষে ৪ ওভার বল করে ৩৬ রানের খরচায় ২টি উইকেট শিকার করেন ম্যাথিউ ফোর্ড। ৪ ওভার বল করে ৪৬ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট পান মঈন আলী।

Comments

The Daily Star  | English

No protests tomorrow

At least six people were killed in three districts, including the capital, in clashes between Chhatra League and quota reform protesters today.

1h ago