গালতিয়ের চোখে নেইমারের আচরণ সমালোচনার ঊর্ধ্বে

শেষদিকে বদলি হওয়ায় নেইমার অখুশি হলেও সেটা নিয়ে চর্চা হোক চান না গালতিয়ের।
ছবি: এএফপি

ম্যাচের তখন ৮৫তম মিনিট। মাঠ থেকে উঠিয়ে নেওয়া হলো দারুণ খেলতে থাকা নেইমারকে। তবে বেরিয়ে যাওয়ার সময় গোপন থাকেনি ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের মৃদু অসন্তোষ। একে অবশ্য সাধারণ ব্যাপার হিসেবে দেখছেন পিএসজির কোচ ক্রিস্তফ গালতিয়ের। তার চোখে, নেইমারের এমন আচরণ নিয়ে সমালোচনার কিছু নেই।

রোববার রাতে ফরাসি লিগ ওয়ানের ম্যাচে অলিম্পিক লিওঁর মাঠে ১-০ গোলে জিতেছে প্যারিসিয়ানরা। পঞ্চম মিনিটে জয়সূচক গোলটি আসে আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসির পা থেকে। তাকে বলের যোগান দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন নেইমার। এরপর ফরোয়ার্ডদের বেশ কিছু সুযোগ নষ্ট করা ও প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক অ্যান্থনি লোপেসের দুর্দান্ত সব সেভের কারণে ব্যবধান বাড়াতে পারেনি আসরের শিরোপাধারীরা।

ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে নেইমারের পারফরম্যান্সের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন গালতিয়ে, 'সে হলো নেইমার যে আমাদের দলকে সবচেয়ে ভালো ভারসাম্য দেয়। প্রচেষ্টার পুনরাবৃত্তি করার সামর্থ্য আছে তার। তার মহিমা রয়েছে, রয়েছে তীক্ষ্ণতা। এই ধরনের ম্যাচে সেরা খেলোয়াড়দের সামনে এগিয়ে আসতে হয়।'

লিওঁর বিপক্ষে ম্যাচটি ছিল লিগ ওয়ানে পিএসজির জার্সিতে নেইমারের শততম। অসাধারণ নৈপুণ্যে তিনি অবদান রেখেছেন ১২১ গোলে। নিজে করেছেন ৭৭ গোল, সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন আরও ৪১ গোল। চলমান লিগের শুরু থেকেই পায়ের জাদুতে মাঠে ঝলক দেখাচ্ছেন ৩০ বছর বয়সী নেইমার। পিএসজির ২৬ গোলের ১৫টিতেই রয়েছে তার অবদান (৮ গোল, ৭ অ্যাসিস্ট)।

শেষদিকে বদলি হওয়ায় নেইমার অখুশি হলেও সেটা নিয়ে চর্চা হোক চান না গালতিয়ের, 'নেইমার দলের জন্য অনেক ভূমিকা রাখে। সে যখন মাঠ থেকে বেরিয়ে আসছিল, সে কিছুটা রাগান্বিত ছিল। এটা খুবই স্বাভাবিক। তার আচরণ সমালোচনার ঊর্ধ্বে। সে তীক্ষ্ণ বুদ্ধিসম্পন্ন এবং এই মৌসুমকে ঘিরে তার অনেক উচ্চাকাঙ্ক্ষা রয়েছে। সেটা ক্লাব ও ব্যক্তিগত পরিসংখ্যান উভয়ের পরিপ্রেক্ষিতে।'

এই জয়ে লিগ ওয়ানের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে গেছে পিএসজি। আট ম্যাচে সাত জয় ও এক ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ২২। ছয় নম্বরে থাকা লিওঁ সমান ম্যাচে পেয়েছে ১৩ পয়েন্ট। পিএসজির নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মার্সেই ২০ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে দুইয়ে।

কঠিন প্রতিপক্ষের মাঠে জয় পাওয়ায় খুশি গালতিয়ে, 'আমরা জানতাম যে আমাদের কঠিন সময়ের মুখোমুখি হতে হবে। তবে আমরা একটি ভালো ম্যাচ খেলেছি। তবে যে সংখ্যক সুযোগ আমরা হাতছাড়া করেছি কিংবা অ্যান্থনি আটকে দিয়েছে, তা নিয়ে আমাদের আক্ষেপ থাকতে পারে। বড় ব্যবধানে জিততে পারতাম।'

Comments

The Daily Star  | English

Diagnose dengue with ease at home

People who suspect that they have dengue may soon breathe a little easier as they will not have to take on the hassle of a hospital visit to confirm or dispel the fear.

9h ago