মেসি-নেইমার-এমবাপেকে নিয়ে হারল পিএসজি

এদিন শুরুর একাদশে মেসি-নেইমার থাকলেও বঞ্চে বসেছিলেন এমবাপে। দ্বিতীয়ার্ধে তাকে মাঠে নামিয়েছিলেন কোচ। তবে নেমে মেসির পাস থেকে গোলের সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেন ফরাসী তারকা।
Lionel Messi

বিশ্বকাপ বিরতির পর এই প্রথম আক্রমণ ভাগের সেরা তিন তারকা লিওনেল মেসি, কিলিয়ান এমবাপে আর নেইমারকে একসঙ্গে পেয়েছিল পিএসজি। তবে সেরাদের নিয়ে নেমেও রেঁনের কাছে ধরাশায়ী হয়েছে তারা।

লিগ ওয়ানের ম্যাচে রোববার প্রতিপক্ষের মাঠে গিয়ে ১-০ গোলে হেরে বসেছে ফরাসি জায়ান্ট ক্লাবটি। রেঁনের মাঠে অবশ্য তিক্ত অভিজ্ঞতা আগেও আছে পিএসজি। এই মাঠে গিয়ে সবশেষ খেলা চার ম্যাচের তিনটাই হারে তারা, আরেকটা হয় ড্র।

এদিন শুরুর একাদশে মেসি-নেইমার থাকলেও বঞ্চে বসেছিলেন এমবাপে। দ্বিতীয়ার্ধে তাকে মাঠে নামিয়েছিলেন কোচ। তবে নেমে মেসির পাস থেকে গোলের সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেন ফরাসী তারকা।

প্রতিপক্ষের গোলমুখে ৮ শট নিলেও মাত্র একটি লক্ষ্যে রাখতে পেরেছিল পিএসজি। অন্যদিকে রেঁনের নেওয়া ৮ শটের ৬টি ছিল লক্ষ্যে। যার একটি থেকে তারা আদায় করে নেয় গোল।

পিএসজি এদিন হারতে পারত আরও বড় ব্যবধানে। প্রতিপক্ষের কিছু চেষ্টা  নস্যাৎ করে দিয়ে দলকে বিব্রতকর অবস্থা থেকে রক্ষা করেন গোলরক্ষক জানলুইজি দোন্নারুম্মা।

খেলার শুরু থেকে এলোমেলো পিএসজি প্রথম সুযোগ পায় ২০ মিনিটে। বক্সের ঠিক সামনে বল পেয়ে মেসি শট মারেন উপর দিয়ে। ২৮ মিনিটে রেঁনেকে আশাহত করে দোন্নারুম্মা। কালিমুন্দোর জোরালো শট দারুণভাবে ফিরিয়ে দেন তিনি।

মেসি কিছু সুযোগ তৈরি কাছে গেলেও সেভাবে ভয় ধরাতে পারছিলেন না। বরং চাপ তৈরি করছিল রেঁনে।

৫৬ মিনিটে এমবাপে আর আশরাফ হাকিমিকে নামিয়ে ধার বাড়ান কোচ গালতিয়ে। কিন্তু তাতে লাভ হয়নি।  ৬৫ মিনিটে রেঁনেকে এগিয়ে নেন হামারিও ত্রাওরে।

মিনিট পাঁচেক পরেই সমতায় ফেরার সুযোগ পেয়েছিল পিএসজি। মেসির বাড়ানো বল ধরে বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন এমবাপে। কিন্তু বিস্ময়করভাবে এমবাপে বল মারেন উড়িয়ে!

ম্যাচের বাকিটা সময় এই এক গোল ধরে রেখে মাঠ ছাড়ে রেঁনে। হতাশায় মাথা নুইয়ে বেরিয়ে গেলেও লিগে পয়েন্ট টেবিলে অবস্থান নড়েনি পিএসজির। ১৯ ম্যাচে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে তারা আছে একে। সমান ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে অবস্থান লঁসের।

Comments

The Daily Star  | English

Police see dead man running

Prisoners, migrants, even the deceased get implicated in cases

10h ago