কাসেমিরোর শাস্তি মেনে নিলেও একপেশে সিদ্ধান্তে ক্ষোভ টেন হাগের

শনিবার রাতে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ২-১ গোলে জিতেছে ইউনাইটেড। ম্যাচ জিতলেও বড় আলোচনা কেড়ে নেয় ৭০ মিনিটের ঘটনা। যার রেশে লাল কার্ড পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় দলের ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার কাসেমিরোকে।
Casemiro received a red card

দুই গোলে এগিয়ে থেকে সহজ জয়ের রাস্তাতেই ছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। একটি ফাউল নিয়ে আচমকা লেগে যায় ক্রিস্টাল প্যালেস খেলোয়াড়দের সঙ্গে তাদের সংঘাত। সেখানেই প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের গলা চেপে ধরে লাল কার্ড দেখেন কাসেমিরো। ম্যানইউ কোচ এরিক টেন হাগ এই শাস্তি মেনে নিলেও সমান বাজে আচরণের পরও প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের কাউকে এমন সাজা না দেয়ায় ক্ষোভ জানিয়েছেন।

শনিবার রাতে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ২-১ গোলে জিতেছে ইউনাইটেড। ম্যাচ জিতলেও বড় আলোচনা কেড়ে নেয় ৭০ মিনিটের ঘটনা। যার রেশে লাল কার্ড পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় দলের ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার কাসেমিরোকে।

ম্যাচ শেষে এই ঘটনা নিয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন কোচ টেন হাগ,  'আমরা দারুণ একটি ম্যাচ খেললাম। ৭০ মিনিট পর্যন্ত তীব্রতা ছিল, এরপরে সেই ঘটনাটা ঘটল।'

'এটা দলের দারুণ স্পিরিট। দলের একজনকে যখন বাজেভাবে আঘাত করা হলো কেউ মেনে নেয়নি। অ্যান্তনিকে যেভাবে ফাউলের শিকার হলো। সেটাতেই তীব্র প্রতিক্রিয়া এসেছে। এই দল একে অন্যের জন্য খেলে। তবে অবশ্যই আপনাকে মাঠে আবেগ সামলাতে হবে। এরকম মুহূর্ত কঠিন পরিস্থিতি হয়, আমরা দেখলাম দুই দল মারামারি করল।'

অ্যান্তনিকে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড় ফাউল করে ধাক্কা দিয়ে লাইনের বাইরে ফেলে দিলে ঝামেলায় জড়ান বাকিরা। দুই দলের প্রায় সব খেলোয়াড় জড়িয়ে যান মারামারিতে। এক পর্যায়ে কাসেমিরোকে দেখা যায় একজনের কলার চেপে ধরতে। ভিএআরে  তা দেখে তাকে লাল কার্ড দেন রেফারি।

তবে টেন হাগের মতে মাত্রা ছাড়িয়েছেন দুই দলের খেলোয়াড়রাই। প্যালেসের ফরোয়ার্ড জর্ডান আয়েও ফ্রেডের গলা চেপে ধরেছিলেন। কিন্তু শাস্তি কেবল দেওয়া হলো কাসেমিরোকে। এই ব্যাপারটাই হজম হচ্ছে না টেন হাগের,  'আমি দেখেছি দুই দলের খেলোয়াড়রাই সীমা লঙ্ঘন করেছে কিন্তু কেবল একজনকেই শাস্তি দেওয়া হলো, মাঠ থেকে বের করে দেয়া হলো। যেটা ঠিক হয়নি।'

'ক্রিস্টাল প্যালেসের খেলোয়াড় বাজেভাবে ফাউল করল, লাইনের বাইরে গিয়ে ধাক্কা মারল। তারপরে সবাই প্রতিক্রিয়া দেখাল। শুধু কাসেমিরোই না। জর্ডান আয়েও কাসেমিরোর চেয়েও বাজে আচরণ করেছে। তবু শাস্তি কেবল কাসেমিরোকেই দেয়া হলো।'

এদিন ব্রুনো ফার্নান্দেজের পেনাল্টি গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মার্কাস রাশফোর্ড। কাসেমিরো লাল কার্ড পেয়ে বেরিয়ে যাওয়ার পর জ্রেফি শ্লুপের গোলে খেলায় ফেরার ইঙ্গিত দিলেও পরে আর পেরে উঠেনি ক্রিস্টাল প্যালেস।

Comments