আত্মঘাতী গোল আর পেনাল্টি মিসে হারল রিয়াল

শুরুর দিকে আত্মঘাতী গোল হজম করে পিছিয়ে পড়ল রিয়াল মাদ্রিদ। নিয়মিত খেলোয়াড়দের কয়েকজনের অনুপস্থিতিতে তাদের পারফরম্যান্স হলো বিবর্ণ। পেনাল্টি থেকে সমতায় ফেরার সুবর্ণ সুযোগও তারা নষ্ট করল। শেষ পর্যন্ত হারের তিক্ত স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়ল কার্লো আনচেলত্তির শিষ্যরা।
ছবি: এএফপি

শুরুর দিকে আত্মঘাতী গোল হজম করে পিছিয়ে পড়ল রিয়াল মাদ্রিদ। নিয়মিত খেলোয়াড়দের কয়েকজনের অনুপস্থিতিতে তাদের পারফরম্যান্স হলো বিবর্ণ। পেনাল্টি থেকে সমতায় ফেরার সুবর্ণ সুযোগও তারা নষ্ট করল। শেষ পর্যন্ত হারের তিক্ত স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়ল কার্লো আনচেলত্তির শিষ্যরা।

রোববার রাতে স্প্যানিশ লা লিগায় তুলনামূলক বেশ দুর্বল মায়োর্কার মাঠে ১-০ গোলে হেরেছে শিরোপাধারী রিয়াল। ম্যাচের ১৩তম মিনিটে নাচো ফার্নান্দেজ দুর্ভাগ্যক্রমে নিজেদের জালেই বল পাঠিয়ে দেন। এরপর ৬০তম মিনিটে মার্কো আসেনসিওর স্পট-কিক রুখে দেন স্বাগতিক গোলরক্ষক প্রেদ্রাগ রাইকোভিচ। বাকি সময়ে আর ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব হয়নি লস ব্লাঙ্কোদের।

শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে এমন ফল রিয়ালের জন্য নিঃসন্দেহে বড় ধাক্কা। লিগে ২০ ম্যাচে এটি তাদের তৃতীয় পরাজয়। তিনটিই এসেছে সবশেষ আট ম্যাচের মধ্যে। ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে আসরের পয়েন্ট তালিকার দুইয়ে আছে তারা। এক ম্যাচ কম খেলা বার্সেলোনা ১৯ ম্যাচে ৫০ পয়েন্ট নিয়ে অবস্থান করছে শীর্ষে।

বল দখলে অনেক ব্যবধানে এগিয়ে থাকলেও রিয়ালের আক্রমণভাগ ছিল মলিন। প্রতিপক্ষের গোলমুখে ২০টি শট নিয়ে তারা লক্ষ্য রাখতে পারে কেবল একটি। অন্যদিকে, মায়োর্কারও একটি শট লক্ষ্যে ছিল। তারা গোলমুখে শট নিয়েছিল চারটি।

চোটের কারণে ফরাসি স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা, ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার এদার মিলিতাওসহ বেশ কয়েকজন ফুটবলারের খেলার সুযোগ ছিল না। মাঠে নামতে পারেননি বেলজিয়ান গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়াও। ম্যাচ শুরুর কিছু সময় আগে পায়ে চোট পান তিনি। গোলপোস্টের নিচে তার জায়গা নেন ইউক্রেনিয়ান গোলরক্ষক আন্দ্রিই লুনিন।

শক্তি হারিয়ে ফেলা রিয়াল পিছিয়ে পড়ে নাচোর আত্মঘাতী গোলে। দানি রদ্রিগেজের ক্রসে ভেদাত মুরিহির হেডের পর স্প্যানিশ ডিফেন্ডারের মাথা ছুঁয়ে বল জড়ায় জালে। প্রথমার্ধের বাকি সময়ে অবশ্য দাপট দেখায় সফরকারীরা। কিন্তু প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের পরীক্ষা নিতে পারেনি তারা।

দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের ধার বাড়ায় লা লিগার সফলতম ক্লাবটি। ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ভিনিসিয়ুস জুনিয়রকে ডি-বক্সে রাইকোভিচ ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। তবে স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড আসেনসিওর শট ঝাঁপিয়ে রুখে নিজের ভুল শুধরে নেন তিনি।

আট মিনিট পর প্রথম ও একমাত্র শট লক্ষ্যে রাখতে পারে ইতালিয়ান কোচ আনচেলত্তির দল। তবে ভিনিসিয়ুসের প্রচেষ্টা ফাঁকি দিতে পারেনি গোলরক্ষককে। নির্ধারিত সময়ের তিন মিনিট বাকি থাকতে বদলি মারিয়ানো দিয়াসের ভলি চলে যায় ক্রসবারের উপর দিয়ে।

শেষদিকে ম্যাচে তৈরি হয় উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতি। মায়োর্কার খেলোয়াড়দের একের পর এক ফাউলের কারণে কালক্ষেপণ হওয়ায় যোগ করা হয় আট মিনিট। আর একদম শেষ মুহূর্তে হতাশ হতে হয় রিয়ালকে। টনি ক্রুসের ক্রসে ডি-বক্সের ভেতরে অ্যান্টোনিও রুডিগারের হেড অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। তাতে গোল শোধ করে পয়েন্ট পাওয়ার আশা ভেস্তে যায় রিয়ালের।

Comments

The Daily Star  | English
biman flyers

Biman does a 180 to buy Airbus planes

In January this year, Biman found that it would be making massive losses if it bought two Airbus A350 planes.

5h ago