বুনোকে পেতে আলোচনা শুরু করেছে রিয়াল!

ইয়াসিন বুনোর সঙ্গে সম্ভাব্য বিকল্প হিসেবে রয়েছে দাভিদ দে গিয়া ও কেইলর নাভাসের নামও।

চোটের কারণে থিবো কোর্তুয়া প্রায় পুরো মৌসুমের জন্য ছিটকে পড়ায় বিকল্প খুঁজতে এরমধ্যেই মাঠে নেমেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এ তালিকায় তাদের প্রথম পছন্দ সেভিয়ার মরক্কান গোলরক্ষক ইয়াসিন বুনো। এমন সংবাদই প্রকাশ করেছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কা।

গত কয়েক মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদে যেভাবে পারফর্ম করছিলেন কোর্তুয়া, তাতে তার বিকল্প পাওয়া কঠিনই ক্লাবটির জন্য। কিন্তু তারপরও সম্ভাব্য যে কয়জন বিকল্পের নাম উঠেছে তাতে কেবল বুনোর উপরই সে অর্থে আস্থা রাখতে পারে দলটি। তাকে ছাড়া  ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে ফ্রি এজেন্ট হয়ে যাওয়া দাভিদ দে গিয়াও আছেন তালিকায়। সাবেক গোলরক্ষক কেইলর নাভাসকে ফেরানোর বিষয়টিও আলোচিত হচ্ছে।

এদের মধ্যে এগিয়ে রয়েছেন বুনোই। ইউরোপীয় শীর্ষস্তরের খেলাতে চাপ নেওয়ার ক্ষেত্রে পরীক্ষিত তিনি। যদিও ক্লাব পর্যায়ে বরাবরই অসাধারণ পারফর্ম করা বুনো অবশ্য নজরে আসেন কাতার বিশ্বকাপে। তার দুর্দান্ত নৈপুণ্যেই প্রথমবারের মতো কোনো আরব দল ওঠে বিশকাপের সেমি-ফাইনালে। ফাইনালে এমিলিয়ানো মার্তিনেজ শেষ মুহূর্তে অতিমানবীয় সেভ না দিলে হয়তো সেরা গোলরক্ষকের ট্রফিটি তার হাতেই উঠত।

তবে বুনোকে সহজেই পাচ্ছে না রিয়াল। সেভিয়ায় ৫০ মিলিয়ন ইউরো রিলিজ ক্লজ রাখা এই গোলরক্ষকের চুক্তির মেয়াদ রয়েছে ২০২৫ সাল পর্যন্ত। এছাড়া তাদের ভাবনাতে রয়েছে আগামী আফ্রিকান কাপ নিয়েই। ২০২৪ সালে জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হবে এই আসর। মরক্কো জাতীয় দলের মূল গোলরক্ষককে তখন স্বাভাবিকভাবেই ছাড়তে হবে তাদের।

তাই শেষ পর্যন্ত বিকল্প গোলরক্ষক আন্দ্রে লুনিনেও আস্থা রাখতে পারে রিয়াল। তবে নতুন গোলরক্ষক দলে টানার সম্ভাবনার কথা জানান কোচ আনচেলত্তি, 'আমি লুনিনের ওপর ভরসা রাখছি। আমাদের ভাবতে হবে আমরা একজন গোলরক্ষক চাই কিনা এবং আমাদের হাতে ৩১ অগাস্ট পর্যন্ত সময় আছে। আমরা যদি (নতুন) একজন গোলরক্ষকের কথা ভাবতে যাই, তাহলে তা স্রেফ স্কোয়াড শক্তিশালী করার জন্যই হবে, কারণ মৌসুমটা অনেক লম্বা।'

Comments

The Daily Star  | English

Finance is key to Bangladesh’s energy transition

Bangladesh must invest more in renewable energy and energy efficiency to reduce fossil fuel imports to reverse the increasing trajectory of the subsidy burden.

9h ago