মেসিকে বদলি নামতে যেভাবে বুঝিয়েছেন মায়ামি কোচ

শুরু থেকেই খেলতে চেয়েছিলেন মেসি, তবে ভবিষ্যতের কথা ভেবেই তাকে শুরু থেকে খেলাননি কোচ তাতা মার্তিনো।

নিউইয়র্ক রেডবুলসের বিপক্ষে ২-০ গোলের জয়ের ম্যাচ দিয়ে মেজর সকার লিগে (এমএলএস) অভিষেক হয়েছে লিওনেল মেসির। তবে এদিন ম্যাচের শুরু থেকে খেলেননি আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। দ্বিতীয়ার্ধের ১৫ মিনিট যাওয়ার পর নেমে খেলতে পেরেছেন ৩৭ মিনিট। তাতেই গোল আদায় করে নেন এই মহাতারকা।

সিনসিনাটির বিপক্ষে ইউএস ওপেন কাপের সেমি-ফাইনাল ম্যাচ শেষেই মেসিকে বিশ্রামের কথা বলেছিলেন ইন্টার মায়ামি কোচ জেরার্দো তাতা মার্তিনো। পাশাপাশি এটাও জানিয়েছিলেন টানা খেলে যেতে আপত্তি নেই মেসির। এমনকি নিয়মিত মাঠে থাকতে চান আর্জেন্টাইন তারকা। তবে টানা ম্যাচ খেলার ধকল পোহাতে তাকে বুঝেশুঝে ব্যবহারের কথা বলেছিলেন কোচ।

মার্তিনোর সেই মন্তব্যের পর পক্ষে-বিপক্ষে অনেক আলোচনাই হয়েছে। কারণ মেসি যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর দেশটির ফুটবল অঙ্গনে জাগরণের সৃষ্টি হয়েছে। পুরো স্টেডিয়ামে থাকে কানায় কানায় পূর্ণ। তাও আবার বিশাল অঙ্কের অর্থ খরচ করে টিকিট সংগ্রহ করেন সমর্থকরা। কিন্তু সমর্থকদের হতাশ করে এদিন মেসিকে শুরুর একাদশে রাখেননি কোচ।

তবে সমর্থকদের হতাশা বুঝতে পারেন মার্তিনো, 'আমাকে জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে না, তবে আমি তাদের দাবিগুলো বুঝতে পারি। কিন্তু আমরা কেবল তাদের ইচ্ছায় পরিচালিত হতে পারি না। আমরা পরিকল্পনা থেকে ভিন্ন কিছু করতে পারি না। কারণ এমনটা করলে লিওর শরীর বন্ধক দেওয়া হয়ে যাবে। এখানে কোনো খেলোয়াড়কে ধ্বংস করতে আসিনি, বরং এসেছি তার সেরাটা বের করতে।'

মায়ামিতে যোগ দেওয়ার পর গত এক মাসের কিছু বেশি সময়ে ৯টি ম্যাচ খেলেছেন মেসি। এরমধ্যে প্রথম এবং আজকের ম্যাচেই কেবল বিকল্প হিসেবে মাঠে নেমেছেন। মাঝের সবগুলো ম্যাচেই খেলেছেন পুরো সময়। সবশেষ সিনসিনাটির বিপক্ষে তো খেলেছেন ১২০ মিনিট।

তাই মেসি না চাইলেও তাকে ফিট রাখতে বেঞ্চ থেকে শুরুর জন্য বুঝিয়েছেন মার্তিনো, 'মেসির সঙ্গে আলাপকালে তাকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি যে আমাদের প্রতি সপ্তাহে তিনটি করে ম্যাচ ছিল। ফলে আমরা খুব ক্লান্তি নিয়েই এখানে এসেছি। কোনো না কোনো এক পর্যায়ে ওকে থামতে হবে। গত মাসজুড়ে সবগুলো ম্যাচই খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং উত্তেজনাপূর্ণ ছিল। তাই কিছুটা বিশ্রাম নিয়ে সুস্থ হওয়া ওর জন্য ভালো।'

শেষ পর্যন্ত মার্তিনোর কথা মেনে নিয়েছেন মেসি। ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে প্রতিরোধমূলক এই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিলেন বলে জানান মায়ামি কোচ, 'লিও (আর্জেন্টিনা) তার দলে যোগ দিতে যাচ্ছেন, এই বছর ও কমপক্ষে তিনটি ম্যাচ মিস করতে চলেছে, পরের বছরও একই জিনিস ঘটতে চলেছে... আমাদের বুঝতে হবে যে যখন ও দল ছেড়ে গেলে কীভাবে নির্ভরযোগ্য হতে হবে।'

Comments

The Daily Star  | English

Dos and Don’ts during a heatwave

As people are struggling, the Met office issued a heatwave warning for the country for the next five days

21m ago