দোহা, কাতার থেকে   

বিশ্বকাপের মাঠে মাঠে প্রবলভাবে আছে বাংলাদেশও!

প্রিয় দলের খেলা দেখতে স্টেডিয়ামে কেউ আসছেন প্রিয় দলের জার্সি পরে, কেউ আসছেন বাংলাদেশের পতাকার ডিজাইনে তৈরি জার্সি পরে, কেউ কেউ আসছেন প্রিয় দলের জার্সির রঙের লুঙ্গি পরে আর সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে স্টেডিয়ামে আসছেন বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে। আর তারা বাংলাদেশের পতাকা পতপত করে উড়াচ্ছেন লুসাইল, আল বায়েত, আল থুমামা, এডুকেশন সিটি সহ বিশ্বকাপের নানা স্টেডিয়ামে।
World cup Football Fan

কাতার বিশ্বকাপ দেখতে যত দর্শক আর সমর্থক বাংলাদেশ থেকে বিশ্বকাপ দেখতে কাতারে এসেছেন আগের আর কোনো বিশ্বকাপে হয়তো এমনটি হয়নি। শুধু বাংলাদেশ থেকেই নয়, মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে জীবিকার তাগিদে বসবাস করা বাংলাদেশিরাও বিশ্বকাপ দেখতে ছুটে এসেছেন কাতারে। এখানে যে স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে যাচ্ছি সেখানেই দেখা মিলছে বাংলাদেশের দর্শক আর সমর্থকের। এই বিশ্বকাপ ইতিমধ্যে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশি মানুষের ছোটখাটো এক মিলনমেলায়।

প্রিয় দলের খেলা দেখতে স্টেডিয়ামে কেউ আসছেন প্রিয় দলের জার্সি পরে, কেউ আসছেন বাংলাদেশের পতাকার ডিজাইনে তৈরি জার্সি পরে, কেউ কেউ আসছেন প্রিয় দলের জার্সির রঙের লুঙ্গি পরে আর সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে স্টেডিয়ামে আসছেন বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে। আর তারা বাংলাদেশের পতাকা পতপত করে উড়াচ্ছেন লুসাইল, আল বায়েত, আল থুমামা, এডুকেশন সিটি সহ বিশ্বকাপের নানা স্টেডিয়ামে।

World cup Football Fan

কাল খেলা দেখতে গিয়েছিলাম আর্জেন্টিনা আর অষ্ট্রেলিয়ার ম্যাচ। সেই ম্যাচে মেসি ম্যাজিকে যোগ্যতর দল হিসেবেই জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা। কিন্তু মেসি ছাড়া আর্জেন্টিনার বাকিরা বলতে গেলে নিস্প্রভই ছিলেন। লাওতারো মার্টিনেজ অনেকগুলো গোলের সুযোগ পেয়েও গোল করতে পারেননি। শেষদিকে তো অষ্ট্রেলিয়া গোল শোধের জন্য আর্জেন্টিনাকে চেপে ধরেছিল। কিন্তু আর্জেন্টিনার গোলরক্ষকের দৃঢ়তায় গোল করতে পারেনি অষ্ট্রেলিয়া। স্টেডিয়ামের প্রায় পঞ্চাশ হাজার দর্শককে উৎসবে ভাসিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌছে গেছে আর্জেন্টিনা। সেখানে তারা খেলবে বিশ্বকাপের সবসময়ের শক্তিশালী দল টোটাল ফুটবলের দেশ নেদারল্যান্ডের সঙ্গে। আর্জেন্টিনা আর অষ্ট্রেলিয়ার খেলার বিরতিতে হালকা খাবার কিনতে গিয়ে খাবারের দোকানের লাইনে দাঁড়িয়ে কথা হলো বাংলাদেশ থেকে আর্জেন্টিনার খেলা দেখতে আসা সিলেটের ব্যবসায়ী হুমায়ুন আহমেদের সঙ্গে। তিনি স্টেডিয়ামে সাথে করে নিয়ে এসেছেন বাংলাদেশের পতাকা। আর্জেন্টিনা এই বিশ্বকাপ জিতবে কিনা সেই প্রশ্ন করতেই হিনি জানালেন, 'অবশ্যই আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ জেতার সামর্থ রাখে। কিন্তু দলের সবাইকে এজন্য ভালো খেলতে হবে।' এছাড়া মেসি যদি এক ম্যাচ খারাপ খেলে অথবা কোনো কারণে ইনজুরিতে পড়ে যায় তাহলে এই আর্জেন্টিনা কতদূর যেতে পারবে এটা নিয়েও তার শঙ্কা আছে।

World cup Football Fan

বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে খেলা দেখতে এসেছেন কেন এমন প্রশ্নে হুমায়ুন জানালেন, 'ছোটবেলা থেকেই আর্জেন্টিনা সমর্থন করি। আর্জেন্টিনার মানুষ যাতে দেখতে পায়, জানতে পারে বাংলাদেশে তাদের অনেক সমর্থক আছে সেজন্যই বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে স্টেডিয়ামে এই খেলা দেখতে আসা।'

বিশ্বকাপে যে দলগুলো খেলছে তাদের ম্যাচে গ্যালারিতে সেই দেশের পতাকা দেখাটা অস্বাভাবিক নয়। এটাই স্বাভাবিক। সব সমর্থকরাই প্রিয় দলের পতাকা নিয়ে আর জার্সি পরে মাঠে আসেন। কিন্তু এই বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পায়নি যেসব দেশ বা কখনো বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি সেই দেশগুলোর মধ্যে বিশ্বকাপের গ্যালারিতে সবচেয়ে বেশি দেখা যাচ্ছে ফিলিস্তিন আর বাংলাদেশের পতাকা। ফিলিস্তিনিরা তাদের দেশের পতাকা নিয়ে মাঠে আসছেন নিজেদের ভূখন্ড ইসরায়েলিদের কাছ থেকে ফেরত পাওয়ার যে দাবি সেই দাবির প্রতি বিশ্ববাসীর সমর্থন আদায়ে। আর বাংলাদেশিরা স্টেডিয়ামে লাল সবুজ পতাকা নিয়ে আসছেন এমনি এমনি, খুশিতে, বাংলাদেশ বলে একটা ফুটবল পাগল দেশ পৃথিবীতে আছে এটা জানাতে।

World cup Football Fan

স্পেন আর জাপানের খেলার দিন স্টেডিয়ামে দেখা হলো বাংলাদেশ থেকে বিশ্বকাপ দেখতে আসা দম্পতি রাশাদ আর রাইসার সাথে। রাশাদ বাংলাদেশের ছেলে, রাইসা মালেয়শিয়ার মেয়ে। কিন্তু এখন তিনি রাশাদের সঙ্গে বাংলাদেশেই থাকেন। রাশাদ যখন মালেয়শিয়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তেন তখন দুজনের পরিচয়, সেই পরিচয় প্রণয় থেকে গড়িয়েছে পরিণয়ে। দুজনেই সুযোগ পেলে পৃথিবীর নানা দেশ ঘুরে বেড়ান। এবার তারা ঘুরতে এবং বিশ্বকাপ দেখতে এসেছেন কাতারে। বাংলাদেশ থেকে তারা এসেছেন তাদের প্রিয় ফুটবল দল স্পেনকে সমর্থন জানাতে।

ঢাকার বংশালের বাসিন্দা অমিত কুমার ব্রাজিলের ম্যাচে মাঠে মাঠে ঘুরছেন বাংলাদেশের পতাকা হাতে। অমিত পেশায় শিক্ষকতা করেন। এই বিশ্বকাপে তিনি এসেছেন প্রিয় দল ব্রাজিলের খেলা দেখতে। বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে মাঠে কেন এমন প্রশ্নে অমিত জানালেন, 'বাংলাদেশ বিশ্বকাপে নেই তো কি হয়েছে, বাংলাদেশিরা তো আছে। বিশ্ববাসী যাতে জানতে পারে বাংলাদেশের ফুটবল ভক্তদের কথা তাই আমি স্টেডিয়ামে স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে খেলা দেখতে যাচ্ছি।'

বাংলাদেশ ফুটবল বিশ্বকাপে খেলবে এটা জানে না কেউ। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ বিশ্বকাপের মাঠে যাচ্ছেন, অন্য দেশকে সমর্থন দিচ্ছেন, বাংলাদেশের পতাকা পতপত করে গ্যালারিতে উড়াচ্ছেন এই স্বপ্ন বুকে ধারণ করে- বিশ্বকাপে ফুটবলে একদিন খেলবে বাংলাদেশ!   

Comments

The Daily Star  | English

Banking sector abused by oligarchs: CPD

Oligarchs are using banks to achieve their goals, harming good governance, transparency, and accountability in the financial sector, said economists and experts yesterday.

1h ago