দক্ষিণ আফ্রিকায় ডোমিঙ্গো পেয়েছেন শতভাগ সমর্থন, বাংলাদেশে...

ম্যানেজমেন্টে কার উপর বিশ্বাস রাখা যায়, নিশ্চিত ছিলেন না ডোমিঙ্গো
Russell Domingo
সংবাদ সম্মেলনে রাসেল ডমিঙ্গো। ছবি: ফিরোজ আহমেদ

রাসেল ডোমিঙ্গো বাংলাদেশের প্রধান কোচ হয়ে এসেছিলেন ২০১৯ সালে। টাইগারদের সঙ্গে ছিলেন ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। এই দক্ষিণ আফ্রিকানের মেয়াদে কোচিং স্টাফে হয়েছে অনেক পরিবর্তন। বাংলাদেশে থাকাকালীন ম্যানেজমেন্টের সদস্যদের কতটুকু বিশ্বাস করা যায়, তা নিয়ে তার মধ্যে শঙ্কা কাজ করেছে বলেই এবার ইঙ্গিত দিলেন ডোমিঙ্গো।

সদ্যই এক ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে ৪৯ বছর বয়সী কোচ বলেন, 'আমার একটা ম্যানেজমেন্ট দল ছিল সেখানে (দক্ষিণ আফ্রিকা দলের প্রধান কোচ থাকার সময়), যেটিতে আমি শতভাগ বিশ্বাস রেখেছি। আমি জানতাম আমার উপর তাদের শতভাগ সমর্থন আছে। বাংলাদেশে আপনি পুরোপুরি নিশ্চিত না কখনোই। কারণ আপনি একটা ম্যানেজমেন্ট দল পেয়ে থাকেন।'

'এবং আপনি পুরোপুরি নিশ্চিত না- এই লোকের অ্যাজেন্ডা কী, সে কী করছে, আমি কী এই সিদ্ধান্ত নিতে তার উপর বিশ্বাস রাখতে পারি, সে যা বলছে আমি কি তাকে বিশ্বাস করতে পারি। তো দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে ওই সময়ের সংস্কৃতি ও পরিবেশের হিসেবে বাংলাদেশে ছিল অনেক ভিন্ন,' যোগ করেন তিনি।

ডোমিঙ্গোর নেতৃত্বাধীন কোচিং স্টাফে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে অনেকে কাজ করেছেন। ব্যাটিং কোচ হিসেবে দক্ষিণ  আফ্রিকান নিল ম্যাকেঞ্জি ও অ্যাশওয়েল প্রিন্স এবং অস্ট্রেলিয়ার জেমি সিডন্স ছিলেন। বোলিং কোচের ভূমিকায় ওটিস গিবসন, শার্ল ল্যাঙ্গাভেল্ট, অ্যালান ডোনাল্ড কাজ করেছেন। স্পিন বোলিং কোচ হয়ে ড্যানিয়েল ভেট্টোরি ও রঙ্গনা হেরাথ থেকেছেন ডোমিঙ্গোর কোচিং স্টাফে।

ফিল্ডিং কোচের ভূমিকায় রায়ান কুক, শেন ম্যাকডারমট ছিলেন কোচদের দলে। এছাড়া খণ্ডকালীন মেয়াদে বাংলাদেশের সোহেল ইসলাম, মিজানুর রহমান বাবুলও কাজ পেয়েছিলেন জাতীয় দলে। টিম ডিরেক্টরের ভূমিকায় কিছু সময় ছিলেন খালেদ মাহমুদ সুজন।

বাংলাদেশের প্রধান কোচের দায়িত্ব নেওয়ার আগে ডোমিঙ্গো কাজ করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার কোচিং স্টাফে। প্রথমে সহকারী কোচ হিসেবে থাকলেও ২০১৩ সাল থেকে প্রধান কোচের চাকরি পান তিনি। এই পদে ২০১৭ সাল পর্যন্ত প্রোটিয়াদের সঙ্গে ছিলেন। এরপর বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা তাকে উপলব্ধি করিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে তারা কত সুবিধা পান।

'আমি বাংলাদেশের সঙ্গে যখন এসেছি দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে, আমাদের প্রথম অনুশীলন সেশন ছিল ওয়ান্ডারার্সে। আমি আমার একজন কোচকে বলেছিলাম, আমাদের কোনো ধারণাই নেই আমরা কত ভাগ্যবান দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে। দক্ষিণ আফ্রিকার এসব স্টেডিয়াম, এসব সুযোগ-সুবিধা (বিবেচনায়),' বলেন এই কোচ।

বর্তমানে ডোমিঙ্গো দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া দল লায়ন্সের প্রধান কোচের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। দেশটির ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের সবশেষ আসরে তার দল জিতেছে শিরোপা। এছাড়া ২০২৩ সালে কয়েকটি সিরিজে নেদারল্যান্ডসের কোচিং স্টাফেও তার উপস্থিতি ছিল। যুক্তরাষ্ট্র ও ক্যারিবিয়ানে আয়োজিত ২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও তাকে দেখা গেছে ডাচদের ডাগআউটে।

Comments

The Daily Star  | English

More rains threaten to worsen situation

More than one million marooned; BMW predict more heavy rainfall in 72 hours; water slightly recedes in main rivers

1h ago