হারিস রউফের বিরুদ্ধে বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগ!

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হলেও পরে যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে খেলেন থেরন

মূল ম্যাচের শেষ ওভারটা হারিস রউফই করেছিলেন। সেই ওভারে ১৪ রান খরচ করলে সুপার ওভারে গড়ায় ম্যাচ। যেখানে শেষ রক্ষা হয়নি পাকিস্তানের। এরপর অনেক সমালোচনায় বিদ্ধ হচ্ছেন বাবর আজমরা। এরমধ্যেই আবার বড় অভিযোগ তুলেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক পেসার জুয়ান রাস্টি থেরন। রউফ বল টেম্পারিং করেছেন বলে দাবি করেন তিনি।

ডালাসে গতকাল সুপার ওভারের রোমাঞ্চ শেষে ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অবিস্মরণীয় জয়ের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে থেরন লিখেছেন, 'আইসিসি, পাকিস্তানের কিছুক্ষণ আগে পাল্টানো বলে ছালচামড়া আঁচড়ে  তুলে ফেলাটা কি আমরা না দেখার ভান করে থাকব? মাত্র দুই ওভার আগে পাল্টানো বল রিভার্স সুইং করছে! হারিস রউফের বুড়ো আঙুলের নখ দিয়ে বলের ওপর আঁচড়ানো সবাই দেখেছে।'

আগের দিন মূল ম্যাচেই জয়ের পথে ছিল যুক্তরাষ্ট্র। ১৬০ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১৩ ওভারে এক উইকেট হারিয়ে ১০৪ রান তুলে ফেলেছিল দলটি। কিন্তু এরপরই আন্দ্রেয়াস গাউসকে বোল্ড করে দিয়ে পাকিস্তানকে ম্যাচে ফেরান রউফ। শেষ ওভারেও বল করতে আসেন তিনি। শেষ বলে যখন ৫ রান প্রয়োজন তখন ইয়র্কারের চেষ্টায় লো ফুলটাস দিয়ে বাউন্ডারি হজম করে বিপদ ডেকে আনেন তিনি।

মূলত শেষ দিকে বল রিভার্স সুইং করছিল বলেই ইয়র্কার করার চেষ্টা করছিলেন বলে জানান অধিনায়ক বাবর আজম। তবে রউফ আদৌ বল টেম্পারিং করেছেন কিনা এ বিষয়ে কিছু জানায়নি আইসিসি। এমনকি থেরন ছাড়া আর কেউ কোনো ধরণের অভিযোগ তোলেননি।

২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় থেরনের। দুই বছরে ৪টি ওয়ানডে ও ৯টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার পর আর জায়গা না পেলে পরে যুক্তরাষ্ট্র দলে যোগ দেন  তিনি। সবমিলিয়ে মোট ১৮টি করে ওয়ানডে এবং টি–টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন এই পেসার।

Comments