সেই ১০-১৫ রানের ঘাটতির কথাই শুনালেন তারা

শারজার ছোট মাঠের মন্থর উইকেটে আফগানদের কাছে ৭ উইকেটে হেরে এশিয়া কাপ শুরু করেছে বাংলাদেশ। হার থেকেও হারের ধরণ পীড়া দিয়েছে ভক্ত-সমর্থকদের।
Mosaddek Hossain Saikat

সাম্প্রতিক সময়ে এমন কতবার হয়েছে! টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হেরে বাংলাদেশের কোন প্রতিনিধি বা অধিনায়ক এসে বলছেন ১০-১৫ রানের ঘাটতির কথা। পুরনো কথা ফের বলতে হলো আফগানিস্তানের কাছে হেরেও। পুরস্কার বিতরণী আয়োজনে অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের পর সংবাদ সম্মেলনে একই কথা শুনালেন দলের টপ স্কোরার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

শারজার ছোট মাঠের মন্থর উইকেটে আফগানদের কাছে ৭ উইকেটে হেরে এশিয়া কাপ শুরু করেছে বাংলাদেশ। হার থেকেও হারের ধরণ পীড়া দিয়েছে ভক্ত-সমর্থকদের।

আগে ব্যাটিং বেছে আড়ষ্ট অ্যাপ্রোচে মেলেনি বদলে যাওয়ার ছবি। ২৮ রানেই পড়ে যায় ৪ উইকেট। পাওয়ার প্লেতে আসেনি ৩০ রানও। বাকিটা সময়ও চলেছে ভোগান্তি।

বাকিদের ভোগান্তির মধ্যে অবশ্য একদম আলাদা ছিলেন মোসাদ্দেক। তাকে দেখে মনে হয়েছে খেলছেন ভিন্ন কোন উইকেটে। এই অলরাউন্ডারের ৩১ বলে ৪৮ রানের ইনিংসেই ১২৭ পুঁজি পেয়েছিল বাংলাদেশ। যা নিয়ে একটা পর্যায়ে লড়াই জমিয়েও পরে পেরে উঠা হয়নি নাজিবুল্লাহ জাদরানের ঝড়ে।

ম্যাচ হারের পর গণমাধ্যমে কথা বলতে এসে মোসাদ্দেক জানালেন ১৪০ করতে পারলে ম্যাচ জিততে পারতেন তারা,  'এখানে ব্যাটিং করা কঠিন ছিল, নিচু ছিল। ওরা ভালো করেছে, ফলে ওদের কৃতিত্ব দিতে হবে। তবে ১০-১৫ রান কম করেছি আসলে।'

বাংলাদেশ পুরো ইনিংসেই বেশিরভাগ সময় ওভারপ্রতি ছয়ের নিচে ছিল রানরেট। খুব একটা বড় রানের ওভারও দেখা যায়নি। মোসাদ্দেক জানান উইকেট হারানোর ভয়ে তারা হাতখুলে মারতে যাননি,  '(বড় ওভার) মিসিং ছিল, সেটি করার মতো অবস্থানে প্রায় চলে গিয়েছিলাম। তবে উইকেট হারালে কঠিন হয়ে যায়। উইকেট রাখতে পারলে, ১৫ ওভার পর্যন্ত যদি তিন উইকেট নিয়ে যেতে পারতাম, তাহলে ভিন্ন হতো। ওরা ভালো খেলেছে।'

Comments

The Daily Star  | English

Dhaka footpaths, a money-spinner for extortionists

On the footpath next to the General Post Office in the capital, Sohel Howlader sells children’s clothes from a small table.

7h ago