হার থেকে শিক্ষা নিয়ে এগিয়ে যেতে চান সাকিব

'আমরা চাপে ছিলাম, বুঝতে পারছিলাম না কী করা উচিত। এটা এমন একটা চাপের ম‍্যাচ, সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য যেখান থেকে আমরা শিখতে পারি,' ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই বলেছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

'আমরা চাপে ছিলাম, বুঝতে পারছিলাম না কী করা উচিত। এটা এমন একটা চাপের ম‍্যাচ, সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য যেখান থেকে আমরা শিখতে পারি,' ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই বলেছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

তবে এই কথা তেমন নতুন কিছুই নয় টাইগারদের জন্য। প্রায় প্রতি টুর্নামেন্ট ও সিরিজ শেষেই শোনা যায় এমন কথা। কিন্তু আদতে নতুন কিছুই দেখা যায় না। ভুল করাটাই একমাত্র ধারাবাহিকতা যা নিয়মিত মাঠে করে আসছে টাইগাররা। যে কারণে খেলোয়াড়দের মুখস্থ বলি থাকে ওই একটাই।

বৃহস্পতিবার দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার কাছে ২ উইকেটে হেরে এশিয়া কাপ থেকে বিদায় নিয়েছে বাংলাদেশ। অথচ এদিন আগে ব্যাটিং করেন ১৮ রানের বড় সংগ্রহই করেছিল টাইগাররা। কিন্তু সে পুঁজি যথেষ্ট হয়নি তাদের এলোমেলো বোলিংয়ে। শেষ পর্যন্ত ৪ বল বাকি থাকতেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় লঙ্কান শিবির।

৪টি নো-বল ও ৬টি ওয়াইড। অর্থাৎ ১০টি বাড়তি বল করতে হয়েছে বাংলাদেশকে। আবার এই বলগুলো থেকে বাড়তি রান আদায় করে নিয়েছে লঙ্কানরা। এমনকি দলের অন্যতম সেরা ব্যাটার কুশল মেন্ডিস তো জীবনই পেয়েছেন। তখন তিনি ছিলেন ২৯ রানে। সেই মেন্ডিস শেষ পর্যন্ত করেছেন ৬০ রান।

অবশ্য মেন্ডিস ফিরতে পারতেন আরও আগেই। ব্যক্তিগত ২ রানে উইকেটের পেছনে সহজ ক্যাচ ফেলে দিয়েছেন উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিম। ব্যক্তিগত ৩২ রানেও সুযোগ দিয়েছিলেন। এবার ক্যাচ ধরেও মুশফিক বুঝতেই পারেননি ব্যাটে লেগেছে বল। এরপর রানআউটের সহজ সুযোগ দিয়েও বেঁচে গেছেন মেন্ডিস।

তবে সব ছাপিয়ে আলোচনা ওই নো-বল করা নিয়েই। অভিষিক্ত পেসার ইবাদত হোসেন ৬টি ওয়াইডের সঙ্গে করেন দুটি নো-বল। আর দুটি করেছেন আবার একজন স্পিনার শেখ মাহাদি হাসান। যার একটি থেকে আউট হয়েছিলেন মেন্ডিস। অথচ সেই আউটটাই হতে পারতো ম্যাচে টার্নিং পয়েন্ট। স্পিনারদের এমন ভুল স্বাভাবিকভাবেই হতাশা ঝরল সাকিবের কণ্ঠে।

আক্ষেপ করেই অধিনায়ক বলেন, 'টার্নিং পয়েন্ট তো হতেই পারে সেটা।… অনেক সময় পেস বোলাররা নো-বল করে। স্পিনারদের নো-বল করা অবশ্যই অপরাধ। সাধারণত আমাদের স্পিনাররা কখনও এরকম নো-বল করে না। আজকে যেহেতু একটা চাপের ম‍্যাচ ছিল, বোঝা গেল যে আমরা চাপে এখনও কতটা ভেঙে পড়তে পারি। তাই এই জায়গাগুলোতে আমাদের অবশ্যই উন্নতি করতে হবে।

'কোনো অধিনায়কই চায় না, নো-বল হোক। অবশ‍্যই এটা একটা অপরাধ। স্পিনার নো-বল করলে সেটি বড় একটা অপরাধ। তবে আমাদের আরও অনেক জায়গা আছে উন্নতি করার। আজ আমরা অনেক নো আর ওয়াইড করেছি, যেটি সুশৃঙ্খল বোলিং নয়। আমরা চাপে ছিলাম, বুঝতে পারছিলাম না কী করা উচিত। এটা এমন একটা চাপের ম‍্যাচ, সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য যেখান থেকে আমরা শিখতে পারি,' যোগ করেন সাকিব।

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.34 and Tk 0.70 a unit from March, which according to experts will have a domino effect on the prices of essentials ahead of Ramadan.

5h ago