বিপিএল ২০২৩

আম্পায়ারদেরই সিদ্ধান্ত নিতে দেওয়া হোক: ওয়াহাব

বিপিএলে এবার ডিআরএসের পুর্নাঙ্গ সুবিধা দিতে পারেনি বিসিবি। তার পরিবর্তে এডিআরএস নামক বিকল্প ডিআরএসের ব্যবস্থা করেছে তারা। রিপ্লে দেখে অনেকটা ধারণা করেই সিদ্ধান্ত নেন টিভি আম্পায়াররা। তার উপর আবার আইসিসির নিয়মের বাইরে নিজেদের জন্য আলাদা নিয়ম কানুন তৈরি করেছে বিসিবি। তাতে বিতর্ক বেড়েছে আরও। তবে এ সব কিছু বাদ দিয়ে মাঠের আম্পায়ারদের হাতেই সকল দায়িত্ব দেওয়াটা সঠিক বলে মনে করেন খুলনা টাইগার্সের পাকিস্তানি পেসার ওয়াহাব রিয়াজ।
পাকিস্তানের প্রধান নির্বাচক ওয়াহাব

বিপিএলে এবার ডিআরএসের পুর্নাঙ্গ সুবিধা দিতে পারেনি বিসিবি। তার পরিবর্তে এডিআরএস নামক বিকল্প ডিআরএসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। রিপ্লে দেখে অনেকটা ধারণা করেই সিদ্ধান্ত নেন টিভি আম্পায়াররা। তার উপর আবার আইসিসির নিয়মের বাইরে নিজেদের জন্য আলাদা নিয়ম কানুন তৈরি করেছে বিসিবি। তাতে বিতর্ক বেড়েছে আরও। বিতর্ক এড়াতে এ সব কিছু বাদ দিয়ে মাঠের আম্পায়ারদের হাতেই সকল দায়িত্ব দেওয়াটা সঠিক বলে মনে করেন খুলনা টাইগার্সের পাকিস্তানি পেসার ওয়াহাব রিয়াজ।

আগের দিন ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে কুমিল্লা ভিক্টরিয়ান্সের জাকের আলীকে দেওয়া আউটকে কেন্দ্র করে রীতিমতো উত্তাল দেশের ক্রিকেট অঙ্গন। ইফতেখার আহমেদের বলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েছিলেন এ ব্যাটার। মাঠের আম্পায়ার আঙুল তুললে তৃতীয় আম্পায়ারের দ্বারস্থ হন তিনি। রিপ্লেতে পরিষ্কার দেখা যায় বল পিচ করেছিল লেগ সাইডের বাইরে। কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে আউটের সিদ্ধান্ত দেন টিভি আম্পায়ারও।

এরপর আসে সে আউটের পক্ষে বিসিবির সাফাই। তাও প্রায় মাঝরাতে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়, টুর্নামেন্টের প্লেয়িং কন্ডিশন অনুযায়ী, বলের যেকোনো হালকা অংশও পিচিং জোনে থাকলে তা পিচড ইন লাইন হিসেবে গণ্য করা হবে। এই নিয়মের কারণেই মাঠের আম্পায়ারের দেওয়া জাকের আলীর আউট বহাল রাখেন টিভি আম্পায়ার।

অথচ আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, পিচিং জোন দেখার প্রযুক্তিতে বলের ৫০ শতাংশের বেশি লেগ স্টাম্পের বাইরে পিচড করলে তা পিচড আউটসাইড লেগ হিসেবে গণ্য হয়। জাকের আলীর আউটের বেলায় বলের ৯৯ শতাংশই লেগ স্টাম্পের বাইরে ছিল। আইসিসির নিয়মে তাই কোনভাবেই আউট হন না জাকের।

শুধু এই আউটই নয়, এমন বিতর্কিত সিদ্ধান্ত রয়েছে আরও অনেক। যাদের পক্ষে গতকাল এই সিদ্ধান্ত গিয়েছে, তারাও এর ভুক্ত ভুগি হয়েছে আগে। রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে একটি ভুলের শিকার হন এনামুল হক বিজয়। তখন মাঠেই এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করেছিলেন তিনি। আম্পায়ারের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পরে গুনতে হয়েছিল জরিমানাও।

তবে সব সিদ্ধান্ত মাঠের আম্পায়ারকে দিতে দিলেই বিতর্ক অনেক কমে যাবে বলে মনে করেন ওয়াহাব, 'সত্যি বলতে কি এটা সমস্যা তৈরি করছে। এটা আমাদের একটি ম্যাচেও ঘটেছে। যদি আমাকে বেছে নিতে হয়, আমাদের এডিআরএস থাকা উচিত নয় এবং আম্পায়ারদেরই বিচার করতে দেওয়া উচিত কারণ আপনার যদি সঠিক ডিআরএস না থাকে তবে এটি ব্যাটসম্যান এবং বোলার উভয়ের মধ্যেই সন্দেহ তৈরি করতে পারে। আম্পায়ারদেরই বিচার করতে দিন এবং তাদের সিদ্ধান্ত নিতে দিন কোনটি সঠিক।'

Comments

The Daily Star  | English

'Why haven't my parents come to see me?'

9-year-old keeps asking while being treated at burn institute

26m ago