ফাইনাল খেলতে চান স্পেনের কোচ এনরিকে

২০১৪ ও ২০১৮ সালে যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নেয় তারা। সেই ব্যর্থতার ধারার পরিবর্তন এবার হবে বলে আশাবাদী লুইস এনরিকে।
ছবি: এএফপি

২০১০ আসরে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের শিরোপা ঘরে তোলে স্পেন। এরপর ২০১৪ ও ২০১৮ সালে যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নেয় তারা। সেই ব্যর্থতার ধারার পরিবর্তন এবার হবে বলে আশাবাদী লুইস এনরিকে। লা ফুরিয়া রোজাদের কোচ ২০২২ কাতার বিশ্বকাপে খেলতে চান ফাইনাল।

এবারের আসরে বেশ কঠিন গ্রুপে পড়েছে স্প্যানিশরা। 'ই' গ্রুপে তাদের তিন প্রতিপক্ষ হলো চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানি, এশিয়ার জাপান ও উত্তর আমেরিকার কোস্টারিকা। গ্রুপ পর্বের বাধা তারা পেরিয়ে যাবে, এমন আশা করতেই পারেন ভক্ত-সমর্থকরা। তবে ফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছাতে হলে নিজেদের সেরাটা নিংড়ে দিতে হবে এনরিকের শিষ্যদের। তাদের পরাস্ত করতে হতে পারে বেলজিয়াম, ক্রোয়েশিয়া, পর্তুগাল বা ব্রাজিলের মতো ফুটবল পরাশক্তিদের।

বৃহস্পতিবার রাতে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে স্বাগতিক জর্ডানকে ৩-১ গোলে হারায় স্পেন। বিশ্বকাপের আগে এটাই ছিল তাদের শেষ ম্যাচ। দলটির পক্ষে লক্ষ্যভেদ করেন আনসু ফাতি, গাভি ও নিকো উইলিয়ামস। ভালোভাবে প্রস্তুতি সারার পর এনরিকে কথা বলেন ফুটবলের আসন্ন মহাযজ্ঞে তরুণ স্কোয়াড নিয়ে যাওয়া স্প্যানিশদের সম্ভাবনা নিয়ে।

বিশ্বকাপের ফাইনাল পর্যন্ত কোনো দলকে সাতটি ম্যাচে অংশ নিতে হয়। সেটা উল্লেখ করে সংবাদ সম্মেলনে এনরিকে বলেন, 'আমরা ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে সাত নম্বরে আছি। আমাদের লক্ষ্য হলো কাতারে সাতটি ম্যাচ খেলা।'

প্রীতি ম্যাচে শিষ্যদের পারফরম্যান্স নিয়ে সন্তুষ্টি ঝরে স্প্যানিশ কোচের কণ্ঠে, 'আমি (জর্ডানের বিপক্ষে) দলকে ভালো খেলতে দেখেছি। যদিও বিশ্বকাপ এত কাছে থাকায় খেলার জন্য সময়টা উপযুক্ত ছিল না। আমি মনে করি, আমরা ভালো একটি ম্যাচ খেলেছি। আজ (বৃহস্পতিবার) ফল কম গুরুত্বপূর্ণ ছিল। তবে জেতাটা সব সময়ই ভালো।'

জর্ডানের বিপক্ষে আলো ছড়ান বার্সেলোনার ফাতি ও রিয়াল মাদ্রিদের মার্কো আসেনসিও। তাদের প্রশংসায় ভাসান এনরিকে, 'এটা দারুণ একটি সংবাদ। তার (ফাতির) সঙ্গে গোলের দারুণ একটি সম্পর্ক রয়েছে। সে (আসেনসিও) অন্য পর্যায়ে খেলছে, অসাধারণ।'

আগামী ২৩ নভেম্বর কোস্টারিকার বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে স্পেন। এরপর যথাক্রমে জার্মানি ও জাপানের মুখোমুখি হবে তারা।

Comments