সৌদি আরব আমাদের অবাক করেনি: মেসি

ভীষণ হতাশার হারের পর রেকর্ড সাতবারের ব্যালন ডি'অর জয়ী মেসি কৃতিত্ব দেন প্রতিপক্ষকে।
ছবি: এএফপি

সৌদি আরবের মুখোমুখি হওয়ার আগে সংবাদ সম্মেলনে লিওনেল মেসি জানিয়েছিলেন, ম্যাচটা কঠিন হতে যাচ্ছে। তবে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে ৪৮ ধাপ পিছিয়ে থাকা প্রতিপক্ষের কাছে আর্জেন্টিনা হেরে যাবে সেটা বোধহয় ঘুণাক্ষরেও ভাবেনি ফুটবলপ্রেমীরা! মেসি অবশ্য আগের বক্তব্যে পরিবর্তন না এনে জানালেন, এশিয়ার দলটি তাদের অবাক করেনি।

লুসাইল স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার কাতার বিশ্বকাপের 'সি' গ্রুপের ম্যাচে সৌদির কাছে ২-১ গোলে হেরেছে শিরোপাপ্রত্যাশী আর্জেন্টিনা। প্রথমার্ধের দশম মিনিটে মেসির স্পট-কিকে লিড নেয় লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা। এরপর তাদের তিনটি গোল বাতিল হয় অফসাইডে। দ্বিতীয়ার্ধে জমাট রক্ষণের সঙ্গে গতিময় আক্রমণের সমন্বয়ে অঘটন ঘটায় সৌদি। পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে দুবার আর্জেন্টাইনদের জালে বল পাঠায় তারা। সালেহ আল শেহরি দলকে সমতায় ফেরানোর পর জয়সূচক গোল করেন সালেম আল দাওসারি।

ভীষণ হতাশার হারের পর রেকর্ড সাতবারের ব্যালন ডি'অর জয়ী মেসি কৃতিত্ব দেন প্রতিপক্ষকে। গণমাধ্যমের কাছে তিনি বলেছেন, 'আমরা জানতাম যে আমরা যদি তাদেরকে সুযোগ দেই, তাহলে তারা (ভালো) খেলবে। তারা আমাদের অবাক করেনি। আমরা জানতাম যে তারা এমন কিছু করতে পারে।'

বিশ্বজয়ের স্বপ্ন নিয়ে কাতারে যাওয়া আর্জেন্টিনা পড়েছে চাপে। তাদের পরের দুই প্রতিপক্ষ মেক্সিকো ও পোল্যান্ড সৌদির চেয়ে শক্তির বিচারে অনেক এগিয়ে। ফলে আলবিসেলেস্তেদের গ্রুপ পর্বের বাধা পেরোনো নিয়ে শঙ্কা জেগেছে। বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে মেসির মন্তব্য, 'এটা এমন একটা পরিস্থিতি যেখানে এই দলের খেলোয়াড়রা কখনও পড়েনি। অনেকটা সময় পর আমরা এরকম বড় একটা ধাক্কা খেলাম। এভাবে শুরু করার প্রত্যাশা আমাদের ছিল না।'

টানা ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর হারের ভুলে যাওয়া স্বাদ নিয়েছে আর্জেন্টিনা। এতে আবার দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার অবস্থাও তৈরি হয়েছে তাদের। ঘুরে দাঁড়িয়ে চেনা পথে ফিরতে অনুমিতভাবেই জয়ের বিকল্প দেখছেন না মেসি, 'অবশ্যই, আমাদের এখন জেতার কোনো বিকল্প নেই। আমরা যা ভুল করেছি, সেটা ঠিক করার দায়িত্ব আমাদেরই। আর আমাদেরকে ফিরে যেতে হবে মৌলিক বিষয়গুলোতে।'

দুই গোল হজমের মাঝে ব্যবধান মাত্র পাঁচ মিনিটের। সেসময় আর্জেন্টিনা খেলায় ভুল করেছিল বলে মনে করছেন ৩৫ বছর বয়সী মেসি, 'পাঁচ মিনিটের ভুলে আমরা ২-১ গোলে পিছিয়ে পড়লাম এবং তারপর ম্যাচটা খুব কঠিন হয়ে গিয়েছিল। আমরা একতা হারিয়ে ফেলি এবং বল এদিক-ওদিক মারতে থাকি।'

বড় ধাক্কা খেলেও পরের দুই ম্যাচের জন্য ভক্তদের সমর্থন চেয়েছেন তিনি, 'আমরা ঠিক আছি। অবশ্যই, এই ফলে আমরা আঘাত পেয়েছি। তবে মানুষকে বিশ্বাস রাখতে হবে যে এই দল তাদেরকে হতাশ করবে না। আগামী দুই ম্যাচে আমরা সবকিছু নিংড়ে দেব। আমরা এই ধরনের ম্যাচ আগেও খেলেছি এবং আমরা ভালো পারফর্ম করব।'

Comments

The Daily Star  | English