শ্রীলঙ্কাকে বাংলাদেশের গ্রুপে পড়তে দিল না আমিরাত

জিতলেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতো নামিবিয়া। সেক্ষেত্রে গ্রুপ রানার্সআপের স্থান পেত শ্রীলঙ্কা। সুপার টুয়েলভে তারা পড়ত বাংলাদেশের গ্রুপে।
ছবি: এএফপি

জিতলেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতো নামিবিয়া। সেক্ষেত্রে রানার্সআপের স্থান পেত শ্রীলঙ্কা। আর সুপার টুয়েলভে তারা পড়ত বাংলাদেশের গ্রুপে। নামিবিয়া আশাও জাগিয়েছিল জয়ের। ৬৯ রানে ৭ উইকেট হারানোর পরও করেছিল প্রাণান্ত চেষ্টা। ডেভিড ভিসে ব্যাট হাতে তুলেছিলেন ঝড়। কিন্তু শেষ ওভারে তিনি থামলে আটকে যায় তার দলও। তাদেরকে বিদায় করে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথম জয়ের স্বাদ পেল সংযুক্ত আরব আমিরাত।

বৃহস্পতিবার গিলংয়ে প্রথম রাউন্ডের 'এ' গ্রুপের নাটকীয় ম্যাচে ৭ রানে জিতেছে আমিরাত। তবে আসর থেকে তাদের বাদ পড়া নিশ্চিত হয়ে গেছে আগেই। আমিরাতের জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে শ্রীলঙ্কা। সুপার টুয়েলভে তারা খেলবে এক নম্বর গ্রুপে। দুই নম্বর গ্রুপে জায়গা পেয়েছে রানার্সআপ হওয়া নেদারল্যান্ডস। তাদের বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। আগামী ২৪ অক্টোবর হোবার্টে মুখোমুখি হবে দুই দল।

তিন ম্যাচে লঙ্কানদের পয়েন্ট ৪। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট ডাচদেরও। তবে তারা রান রেটে পিছিয়ে। রান রেটে এগিয়ে থাকায় ২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থান পেয়েছে নামিবিয়া। তলানিতে থাকা আরব আমিরাতের পয়েন্টও ২।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩ উইকেটে ১৪৮ রান তোলে আমিরাত। এরপর বাসিল হামিদ ও জহুর খানের তোপে সহজ জয়ের সুবাসই পাচ্ছিল তারা। তবে ধারার বিপরীতে দাঁড়িয়ে যান অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার ভিসে। তিনি আগ্রাসী ফিফটি হাঁকালেও লক্ষ্যের পায়নি নামিবিয়া। তারা পৌঁছাতে পারে ৮ উইকেটে ১৪১ রান পর্যন্ত।

জবাব দিতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে নামিবিয়া। দ্বিতীয় ওভারে স্টিফেন বার্ড আউট হন। পরের ওভারে আরেক ওপেনার মাইকেল ভ্যান লিঙ্গেনকে বিদায় করেন হামিদ। পঞ্চম ওভারে আক্রমণে ফিরে ইয়ান নিকোল লফটি-ইটনকে এলবিডব্লিউ করেন তিনি।

অধিনায়ক গেরহার্ড এরাসমাস থিতু হয়ে বিদায় নেন। তিন বলের মধ্যে রানআউটে কাটা পড়েন জেজে স্মিট। জহুর একই ওভারে ইয়ান ফ্রাইলিঙ্ক ও জেন গ্রিনকে ফেরালে মহাবিপাকে পড়ে নামিবিয়ানরা। সেই অবস্থায় অতীতে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলা ভিসে পাল্টা লড়াই চালান। তাতে ম্যাচ নেয় নাটকীয় মোড়।

৩১ বলে ফিফটি স্পর্শ করেন ভিসে। তাকে সঙ্গ দিতে থাকেন রুবেন ট্রাম্পলম্যান। শেষ ওভারে জয়ের জন্য নামিবিয়ার দরকার দাঁড়ায় ১৪ রান। চতুর্থ বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে সীমানার কাছে ধরা পড়েন ভিসে। মোহাম্মদ ওয়াসিমের বলে ক্যাচ নেন আলিশান শারাফু। উল্লাসে মাতে আমিরাত।

ভিসে ৫৫ রান করেন ৩৬ বলে। তার ব্যাট থেকে আসে ৩টি করে চার ও ছক্কা। ট্রাম্পলম্যান অপরাজিত থাকেন ২৪ বলে ২৫ রানে। বাসিল ৩ ওভারে ১৭ রানে নেন ১ উইকেট। জহুর ৪ ওভারে ২ উইকেট শিকার করেন ২০ রানে।

এর আগে আরব আমিরাতকে দেড়শ নিচে বাঁধেন নামিবিয়ার বোলাররা। তাদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫০ রানের ইনিংস খেলেন ওয়াসিম। ৪১ বল খেলে তিনি মারেন ১ চার ও ৩ ছক্কা। ভৃত্য অরবিন্দের সঙ্গে ৪৯ বলে ৩৯ ও অধিনায়ক সিপি রিজওয়ানের সঙ্গে ৪১ বলে ৫৮ রানের জুটি গড়েন তিনি।

রানের চাকায় পরে দম দেন রিজওয়ান ও হামিদ। ১৮ বলে অবিচ্ছিন্ন থেকে ৩৫ রান আনেন তারা। রিজওয়ান ২৯ বলে ৪৩ রান করেন ৩ চার ও ১ ছক্কায়। সমান ২টি করে চার ও ছয়ে ১৪ বলে ২৫ রান করেন হামিদ।

Comments

The Daily Star  | English

How helicopters took Dhaka’s denizens to the skies

AK Azad, chairman and chief executive officer of Ha-Meem Group and a member of parliament from Faridpur-3 constituency, used to visit his factories in his car once or twice a month around a year ago.

14h ago