তিন বছর পর প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ফিরছেন আমির

২০১৯ সালের অগাস্টে শেষবার প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছিলেন মোহাম্মদ আমির।
mohammad amir
মোহাম্মদ আমির। ছবি: এএফপি

২০১৯ সালের অগাস্টে শেষবার প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছিলেন মোহাম্মদ আমির। এরপর থেকে আর এই পর্যায়ের ক্রিকেটে অংশ নেওয়া হয়নি তার। তবে চমক দেখিয়ে হঠাৎ করে পাকিস্তানের এই বাঁহাতি পেসার ফিরছেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে। তার সঙ্গে স্বল্প মেয়াদের চুক্তি করেছে ইংল্যান্ডের কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপের দল গ্লুস্টারশায়ার।

শুক্রবার ক্রীড়া বিষয়ক গণমাধ্যম ইএসপিএন জানিয়েছে, গ্লুস্টারশায়ারের হয়ে তিনটি ম্যাচ খেলবেন আমির। চোটে পড়া পাকিস্তানের তরুণ পেসার নাসিম শাহের জায়গায় তাকে দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। কাঁধের চোটে পড়েছেন নাসিম। এক মাসের জন্য তাকে থাকতে হবে মাঠের বাইরে।

আগের দিন বৃহস্পতিবার ইংল্যান্ডে পৌঁছেছেন ২৯ বছর বয়সী আমির। এরপর ম্যানচেস্টারে অবস্থানরত গ্লুস্টারশায়ার স্কোয়াডের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন তিনি।

আমিরকে দলে নেওয়ার প্রসঙ্গে গ্লুস্টারশায়ারের পারফরম্যান্স ডিরেক্টর স্টিভ স্নেল বলেছেন, 'চোটের কারণে আমরা নাসিমকে কয়েক সপ্তাহ ধরে পাচ্ছি না। আমরা তাকে পুরোপুরিভাবে সেরে উঠতে সহায়তা করছি। এই সময়ে আমির তার ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের অভিজ্ঞতা দিয়ে আমাদের সহায়তা করবে।'

কাউন্টিতে খেলতে মুখিয়ে থাকার কথা জানিয়েছেন আমির, 'কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপ খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ একটি প্রতিযোগিতা। গ্লুস্টারশায়ারের হয়ে খেলতে মুখিয়ে আছি আমি। ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে খেলতে আমি পছন্দ করি। খুব ভালো লাগছে যে আমি সেখানে খেলতে যাচ্ছি। আশা করছি, দলের হয়ে ভালো পারফর্ম করতে পারব।'

এখন পর্যন্ত ৬৭ প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন আমির। ১২১ ইনিংসে ২২.৫০ গড়ে তার শিকার ২৬০ উইকেট। ইনিংসে ১৩ বার ৫ উইকেট ও ম্যাচে দুবার ১০ উইকেট নিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, আমির আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরে গেছেন ২০২০ সালের শেষদিকে। সেসময় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) কাছে মানসিক অত্যাচারের শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছিলেন তিনি। আরও দাবি করেছিলেন, তাকে নিয়ে সারাক্ষণ উপহাস করা হতো দলের মধ্যে।

Comments

The Daily Star  | English

Nation celebrating Eid-ul-Azha amid festive spirit

Bangladesh has begun celebrating Eid-ul-Azha, the second-largest religious festival for Muslims, with fervor and devotion

44m ago