বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজ ২০১৭

অনেক বড় বার্তা দেওয়া গেল: মুশফিকুর

অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের বিপক্ষে কালেভদ্রে খেলার সুযোগ ঘটে বাংলাদেশের। এবার যেমন ১১ বছর পর সুযোগ মিলল ওদের সঙ্গে টেস্ট খেলার। সুযোগ কাজে লাগিয়ে জেতায় অনেক বড় বার্তা দেওয়া গেছে বলে মনে করেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।
Mushfiqur Rahim
অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। ছবি: এএফপি ফাইল ফটো

অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের বিপক্ষে কালেভদ্রে খেলার সুযোগ ঘটে বাংলাদেশের। এবার যেমন ১১ বছর পর সুযোগ মিলল ওদের সঙ্গে টেস্ট খেলার। সুযোগ কাজে লাগিয়ে জেতায় অনেক বড় বার্তা দেওয়া গেছে বলে মনে করেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

টেস্ট ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ অধিনায়কদের সংবাদ সম্মেলনগুলো একসময় ছিলো “শিখছি”, “শিখতে হবে” কথাবার্তায় ভরপুর। সেদিন যেন দূর অতীত। এখন মনোবলে তাগড়া হয়েই সাংবাদিকদের সামনে আসেন অধিনায়ক। মাত্রই অস্ট্রেলিয়ার মত কুলীন টেস্ট দলকে হারিয়েছেন। সিরিজটিকে ঐতিহাসিক তকমা দেওয়াতে তাঁর বড় আপত্তি ছিলো। ফুরফুরে মুশফিক এবার ঐতিহাসিক শব্দটি গ্রহণ করলেন, “এখন বলতে পারি এই ম্যাচটা ঐতিহাসিক ছিল। আপনারা বলছিলেন, ১১ বছর পর খেলা। দিনের হিসাবে একটি ম্যাচ কোনো দিন ঐতিহাসিক হয়? ফলের কারণে হয়তো কোনো ম্যাচকে মনে রাখা যায়। এটিকে আমি এখন অনেক বড় অর্জন বলবো।”

ইংল্যান্ড, শ্রীলঙ্কার পর অস্ট্রেলিয়ায়। বড়দের বিপক্ষে জেতাকে মুশফিক দেখছেন ভিন্ন মাত্রায়, “এই জয়গুলো আমাদের মতো দলকে আরও আত্মবিশ্বাসী করে তুলে। এই ধরনের অভিজ্ঞতাগুলো সব সময়ই কাজে লাগে। আবার যখন এই ধরনের পরিস্থিতিতে পড়বো আরও ভালোভাবে সামলাতে পারবো আমরা। আমি মনে করি এটি অনেক বড় একটা বার্তা।”

টেস্টে পুরো চারদিন জুড়েই উত্থান পতন ছিলো, ছিলো রোমাঞ্চ। কখনো এগিয়ে থাকার পর কখনো গিয়েছিলেন পিছিয়ে। তবে নড়েনি আত্মবিশ্বাস, “আমার মনে হয় চার দিন লড়াই করেছি, সব সময় ওদের সঙ্গেই ছিলাম। আমি বলবো, আজকে ওরা একটু এগিয়ে ছিল। তারপরও, উইকেটে যেমন সহায়তা ছিল স্পিনারদের জন্য আর ওদের ওপরের দুই ব্যাটসম্যান ছাড়া আর যারা আছে তাদের এই ধরনের উইকেটে খেলার অভিজ্ঞতা কমই আছে তাতে এতোটুকু বিশ্বাস আমাদের ছিল।”

বুধবার (৩০ আগস্ট) মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়াকে ২০ রানে হারিয়ে দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। ৪ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামে শুরু হবে শেষ টেস্ট।

Comments

The Daily Star  | English

Home minister says it's a planned murder

Three Bangladeshis arrested; police yet to find his body

1h ago