রাখাইনে সহিংসতা, ফের রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ

​মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর চৌকিতে ‘রোহিঙ্গা জঙ্গিদের’ হামলার পর গতকাল থেকে নতুন করে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ শুরু হয়েছে।
মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নতুন করে সহিংসতা শুরু হওয়ার পর গতকাল কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশে বাধা দেয় বিজিবি। ছবি: এএফপি

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর চৌকিতে ‘রোহিঙ্গা জঙ্গিদের’ হামলার পর গতকাল থেকে নতুন করে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ শুরু হয়েছে।

স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়া সীমান্ত দিয়ে নারী ও শিশুসহ এক হাজারের বেশি রোহিঙ্গা গতকাল ভোরে নাফ নদী পার হয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে।

টেকনাফ ও উখিয়ার সীমান্তবর্তী গ্রামগুলোর বাসিন্দারা বলেছেন, বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুরু হয়ে গতকাল সকাল পর্যন্ত তারা মিয়ানমারের সীমান্তবর্তী গ্রামগুলোর দিক থেকে গুলির শব্দ শুনেছেন।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক আলী হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের বিষয়টি তার নজরে রয়েছে। তবে তিনি এ প্রসঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বলেছে, প্রবেশের কয়েক ঘণ্টা পর ১৪৬ জন রোহিঙ্গাকে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

গতকাল রাখাইন রাজ্যে মুসলিম বিদ্রোহীরা সেনাবাহিনী ও পুলিশের ৩০টি চৌকিতে সমন্বিতভাবে হামলা চালানো হয়। রয়টার্সের খবরে জানানো হয়, ওই হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর ১২ জন সদস্য ও ৫৯ জন হামলাকারী প্রাণ হারান।

দ্য আরাকান রোহিঙ্গা সালভেশন আর্মি (এআরএসএ) নামের একটি সংগঠন হামলার দায় স্বীকার করে এধরনের আরও হামলার হুমকি দিয়েছে। গতকাল সংগঠনটি এক টুইটার বার্তায় হামলার কথা স্বীকার করেছে। রোহিঙ্গাদের এই সংগঠনটি হারাকাহ আল-ইয়াকিন নামে পরিচিত ছিল।

গত বছর অক্টোবর মাসে রাখাইনে সীমান্ত চৌকিতে হামলার পর রোহিঙ্গাদের ওপর ব্যাপক নিধনযজ্ঞ ও গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছিল দেশটির সেনাবাহিনী। নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে সে সময় অন্তত ৮৭ হাজার হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে।

Comments

The Daily Star  | English

Iranian Red Crescent says bodies recovered from Raisi helicopter crash site

President Raisi, the foreign minister and all the passengers in the helicopter were killed in the crash, senior Iranian official told Reuters

4h ago