রান ১৮০’র ওপর থাকতে হবে: সাকিব

নিউজিল্যান্ডে পৌঁছানোর পর থেকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলা হয়ে ওঠেনি বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের। তিনটি এক দিনের ম্যাচে একটি অর্ধশতক ছাড়া তেমন কোন চমকও দেখতে পাওয়া যায়নি তার ব্যাট থেকে।
ছবি: বিসিবি

নিউজিল্যান্ডে পৌঁছানোর পর থেকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলা হয়ে ওঠেনি বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের। তিনটি এক দিনের ম্যাচে একটি অর্ধশতক ছাড়া তেমন কোন চমকও দেখতে পাওয়া যায়নি তার ব্যাট থেকে।

 

টি-টোয়েন্টিতে দ্রুত রান তোলার প্রসঙ্গ আসলে বাংলাদেশ দলের মধ্যে সাকিবের নাম আসে সর্বাগ্রে। টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরুর আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময়ও তাঁর কথায় পাওয়া গেলো নিউজিল্যান্ডের বাস্তবতার একটা চিত্র।

তার প্রথম পর্যবেক্ষণ, ভিন্ন কন্ডিশনে বাংলাদেশকে জিততে হলে ২০০’র কাছাকাছি স্কোর করতে হবে।

চলমান ম্যাকডোনাল্ডস সুপার স্ম্যাশ লিগের প্রসঙ্গ টেনে সাকিব বলেন, “আগে ব্যাট করলে বড় স্কোর করতে হবে আমাদের। আমাদেরকে অন্তত ১৮০ থেকে ১৯০ রান তুলতে হবে। তবে এটা অনেকটা আবহাওয়া ও উইকেটের ওপর নির্ভর করবে। টি-টোয়েন্টিতে এটাই গড় পড়তা স্কোর হচ্ছে এখানে। তাই আমাদের চেষ্টা হবে ওদেরকে এর নিচে আটকে রাখা, আর আমরা প্রথমে ব্যাট করলে এরকমই স্কোর করা।”

সাকিব আরও বলেন, “আমরা যে কয়টা টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দেখেছি এখানে সেগুলোর সবগুলোই বড় স্কোরের। এমনকি ২০০ রানও তাড়া করা হয় এখানে। ওডিআইগুলোতে ভালো করতে পারিনি। আর এ ধরনের উইকেট থাকলে খেলা বড় স্কোরের হবে।”

এটা করতে হলে, সাকিবের ভাষায়, “শর্ট ভার্সনের খেলায় যেটা গুরুত্বপূর্ণ তা হলো গতি হারানো যাবে না। একবার প্রয়োজনীয় গতি অর্জন করতে পারলে এটা নিশ্চিত করতে হবে যেন তা বজায় থাকে।”

সাকিবের আরেকটি পর্যবেক্ষণ হলো, নিউজিল্যান্ডের মাঠ খুব একটা বড় না। এর ফলে বাউন্ডারি পেতেও তেমন বেগ পেতে হবে না। এমন অবস্থায় সুযোগ পেলেই বড় ইনিংস খেলতে হবে।

Comments

The Daily Star  | English

Economy with deep scars limps along

Business and industrial activities resumed yesterday amid a semblance of normalcy after a spasm of violence, internet outage and a curfew left deep wounds on almost all corners of the economy.

30m ago