শীর্ষ খবর

“সবাই যেন সহজ পথটাই খুঁজেছিলাম”

নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের সফরটা তেতো হয়ে গেছে সে কথা বলাই বাহুল্য। তবে নিশ্চিত করে বলা যায় যে এই সিরিজেও অনেক ইতিবাচক দিক রয়েছে। কিন্তু কিউইদের দেশে আট ম্যাচের সব কয়েকটিতেই হেরে যাওয়ার পর সেইসব দ্বি-শতক রান অর্জন অথবা রেকর্ড ভাঙ্গা জুটির খবরে কতটুকুইআ সান্ত্বনা পাওয়া যায়।
Tamim-Iqbal

নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের সফরটা তেতো হয়ে গেছে সে কথা বলাই বাহুল্য। তবে নিশ্চিত করে বলা যায় যে এই সিরিজেও অনেক ইতিবাচক দিক রয়েছে। কিন্তু কিউইদের দেশে আট ম্যাচের সব কয়েকটিতেই হেরে যাওয়ার পর সেইসব দ্বি-শতক রান অর্জন অথবা রেকর্ড ভাঙ্গা জুটির খবরে কতটুকুইআ সান্ত্বনা পাওয়া যায়।

ক্রাইস্টচার্চে গতকাল দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে স্কিপার তামিম ইকবাল হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছিলেন ম্যাচ হারার বেদনা। নিজের পারফরমেন্সকে জঘন্য আখ্যা দিয়ে বলেন, একজন অধিনায়ক হিসেবে তিনি মাঠে কোন ভালো দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করতে পারেননি।

“আমার মনে হয় সবাই যেন সহজ পথটাই খুঁজেছিলাম। কঠিন পরিশ্রম করার জন্য কেউই প্রস্তুত ছিলাম না। এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে খেলোয়াড় ও দর্শক সবাই আশা করেন অধিনায়কই শেষ ভরসা। কিন্তু আমি তা পূরণ করতে পারিনি।”

নিজের আউট হয়ে যাওয়াটাকে জঘন্য হিসেবে উল্লেখ করে তামিম বলেন, “যদি আমি একটা পার্টনারশিপ গড়ে তুলতে পারতাম তাহলে হিসেবটা অন্যরকম হতে পারতো। কয়েকটি শট আরও ভালোভাবে খেলা উচিত ছিলো। যেহেতু আমার উইকেটটি চলে যাওয়ার পর দলের ব্যাটিং লাইনে ধস নেমেছিল তাই হারের পুরো দায়ভার আমার।”

দলের অন্যান্য পেসারদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ না তুলে তামিম বলেন, “অভিজ্ঞতার তুলনায় তারা ভালো বল করেছে এমনকি ভালো ব্যাটও করেছে। আমার চেয়ে কঠিন পরিশ্রম করেছে তারা।”

তবে এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান দলের কয়েকজন জ্যেষ্ঠ খেলোয়াড়দের আউট হয়ে যাওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করেন। এছাড়াও, দলের খেলোয়াড়দের স্লিপ ক্যাচিংয়ের ওপর বিশেষ প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীতার কথাও উল্লেখ করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে নয় উইকেটে হেরে যায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ২৮৯ ও ১৭৩ রানের বিপরীতে কিউরা ৩৫৪ ও এক উইকেটে ১১১ রান তুলে নিলে সব কয়েকটি ম্যাচেই পরাজিত হয় সফরকারীরা।



Click here to read the English version of this news

Comments