টাঙ্গাইল মহাসড়ক প্রায় ফাঁকা

ঈদ উপলক্ষে টানা ৩ দিন যানবাহনের প্রচণ্ড চাপের পর আজ সোমবার ব্যস্ত ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক প্রায় ফাঁকা। মহাসড়কটি দিয়ে সাবলীলভাবে চলাচল করছে অল্প কিছু যানবাহন। স্বস্তিতে বাড়ি ফিরছেন মানুষ।
ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক প্রায় ফাঁকা। ছবি: স্টার

ঈদ উপলক্ষে টানা ৩ দিন যানবাহনের প্রচণ্ড চাপের পর আজ সোমবার ব্যস্ত ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক প্রায় ফাঁকা। মহাসড়কটি দিয়ে সাবলীলভাবে চলাচল করছে অল্প কিছু যানবাহন। স্বস্তিতে বাড়ি ফিরছেন মানুষ।

সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল এবং বঙ্গবন্ধু সেতু সংযোগ সড়ক পরিদর্শনকালে এমন দৃশ্যই দেখা গেছে।

চাপ কমে যাওয়ায় আজ থেকে ঢাকামুখী যানবাহন পুনরায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব সংযোগ সড়ক ব্যবহার করতে পারছে। পূর্ব প্রান্তে যানজট এড়াতে গত কয়েকদিন ঢাকামুখী যানবাহন ভূঞাপুর আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে বাইপাস করে দেওয়া হয়েছিল এবং ১৩ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক  উত্তরমুখী যানবাহনের জন্য ওয়ান ওয়ে করে দেওয়া হয়েছিল।

এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আতাউর রহমান সকাল ১০টার দিকে দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'মহাসড়ক প্রায় ফাঁকা। কোথাও কোনো চাপ নেই। ফাঁকা মহাসড়ক দিয়ে স্বাভাবিক গতিতে চলাচল করেছে যানবাহন।'

'এবার দীর্ঘ ছুটি পেয়ে অনেক মানুষ গত কয়েকদিন সময় পেয়েছেন বাড়ি ফেরার। বিশেষত বৃহস্পতি, শুক্র, শনি এবং রোববার অধিকাংশ মানুষ চলে গেছেন। তাই আজ সোমবার সদাব্যস্ত এই মহাসড়কে অল্প কিছু যানবাহন এবং ঘরে ফেরা মানুষ দেখা যাচ্ছে', যোগ করেন তিনি।

উত্তরের গেট হিসেবে পরিচিত ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক দিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু পার হয়ে উত্তরাঞ্চলের ১৬টি এবং দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ৫টিসহ মোট ২১টি জেলার যানবাহন চলাচল করে। স্বাভাবিক অবস্থায় ১৫-১৬ হাজার গাড়ি সেতু পারাপার হলেও ঈদের আগে এই সংখ্যা ৪০-৫০ হাজার ছাড়িয়ে যায়। তীব্র যানজটে নাকাল হতে হয় ঘরে ফেরা মানুষকে।

গত শুক্রবার থেকে রোববার সকাল ৬টা পর্যন্ত ৩ দিনে বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে পারাপার হয়েছে ১ লাখ ১৯ হাজার ১৯০টি যানবাহন। এরমধ্যে মোটরসাইকেল পারাপার হয়েছে ২১ হাজার ১৩৩টি। এসব যানবাহন থেকে টোল আদায় হয়েছে ৯ কোটি দুই লাখ ২ হাজার ৭৫০ টাকা। এর মধ্যে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গগামী পরিবহন বঙ্গবন্ধু সেতু পার হয়েছে ৭১ হাজার ৯৫৬টি।

Comments

The Daily Star  | English

Mangoes and litchis taking a hit from the heat

It’s painful for Tajul Islam to see what has happened to his beloved mango orchard in Rajshahi city’s Borobongram Namopara.

13h ago