সীতাকুণ্ডে অগ্নিকাণ্ড

‘হাসপাতালের কোনো ওয়ার্ড খুঁজতে বাকি নেই, কিন্তু স্বামীকে পাচ্ছি না’

৩ বছরের মেয়েকে কোলে নিয়ে ও ৮ বছরের ছেলেকে এক হাতে ধরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভেতর উদভ্রান্তের মতো ছুটোছুটি করছেন এক নারী।
মেয়ে লামিয়াকে কোলে নিয়ে চমেকের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ছুটছেন জেসমিন। ছবি: স্টার

৩ বছরের মেয়েকে কোলে নিয়ে ও ৮ বছরের ছেলেকে এক হাতে ধরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভেতর উদভ্রান্তের মতো ছুটোছুটি করছেন এক নারী।

একবার জরুরি বিভাগে যাচ্ছেন, পরক্ষণেই খোঁজ নিচ্ছেন বার্ন ইউনিটে, সেখান থেকে নিরাশ হয়ে ছুটছেন মর্গে। কখনো মাথায় হাত দিয়ে বসে পড়ছেন। আবার কখনো সন্তানদের বিড়বিড় করে কী যেন সান্ত্বনা দিচ্ছেন।

জেসমিন নামের ওই নারী দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'হাসপাতালের কোনো ওয়ার্ড বাকি নেই, সব জায়গায় খোঁজ নিয়েছি, কিন্তু আমার স্বামীকে খুঁজে পাচ্ছি না।'

নিখোঁজ জুয়েলের পরিচয়পত্র। ছবি: স্টার

ওই নারীর স্বামীর নাম জুয়েল। তিনি ২০১৭ সাল থেকে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অপারেটর হিসেবে কাজ করতেন। পরিবার নিয়ে থাকতেন ডিপোর ২ নম্বর গেট এলাকায়। তবে গতরাত ১০টার পর থেকে তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

জেসমিন বলেন, 'রাত ১০ দিকে জুয়েল একবার কল দিয়েছিল। তখন বলেছে ডিপোতে আগুন লেগেছে। এ কথা বলেই ফোন রেখে দিয়েছে। তারপর থেকেই সে নিখোঁজ।'

মা জেসমিনের পাশে ছেলে ইমাম। ছবি: স্টার

'জুয়েলকে খুঁজতে সন্তানদের নিয়ে আমি ভোরেই হাসপাতালে চলে আসি। কিন্তু কোথাও তাকে পাচ্ছি না। কেউ তার কোনো খোঁজ-খবরও দিতে পারছে না', বলেন তিনি।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে জেসমিন আরও বলেন, 'আমার স্বামী বেঁচে আছে, না মরে গেছে জানি না। তাকে ছাড়া ২ সন্তান নিয়ে আমি এখন কোথায় যাব, কী করবো?'

Comments

The Daily Star  | English

97pc work of HSIA third terminal complete: minister

Only three percent of work, which includes calibration and testing of various systems is yet to be completed

34m ago