হাসি ফোটাল তালপাতার পাখা

নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার হাপানিয়া গ্রামের বয়োবৃদ্ধ ৮০ বছর বয়সী সুখজান বেগম এখনও দক্ষ হাতে বানাচ্ছেন তালপাতার হাতপাখা। বয়সের ভারে চামড়া কুঁচকে গেলেও দমে যাননি তিনি। এই বয়সেও প্রতিদিন নিজ হাতে বানাতে পারেন প্রায় ২০০ হাতপাখা।

নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার হাপানিয়া গ্রামের বয়োবৃদ্ধ ৮০ বছর বয়সী সুখজান বেগম এখনও দক্ষ হাতে বানাচ্ছেন তালপাতার হাতপাখা। বয়সের ভারে চামড়া কুঁচকে গেলেও দমে যাননি তিনি। এই বয়সেও প্রতিদিন নিজ হাতে বানাতে পারেন প্রায় ২০০ হাতপাখা।

শুধু সুখজান বেগম নয় এই গ্রামের ১০০টি পরিবারের প্রায় ৪০০ নারী-পুরুষ-শিশু নির্বিশেষে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন পাখা তৈরির কাজে। কেউ তালপাতা রোদে শুকাচ্ছেন, কেউ বানাচ্ছেন পাখা, কেউ করছেন রং কেউবা আবার তা সেলাই করছেন। এভাবেই শিল্পীর নিপুণ হাতে তৈরি হচ্ছে হাজার হাজার তালপাখা। রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর ও টাঙ্গাইলসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে পাইকাররা বাড়িতে এসে কিনে নিয়ে যায় এখানকার তালপাখা।

পাখা তৈরির খ্যাতির কারণে হাপানিয়া গ্রামের নাম বদলে এখন এই গ্রামকে অনেকেই 'তালপাখার গ্রাম' বলেই চেনেন।

বিস্তারিত দেখুন ভিডিও প্রতিবেদনে

Comments