ঈদে মনের মতো সাজিয়ে নিন অতিথি আপ্যায়ন

দরজায় কড়া নাড়ছে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। উৎসবমুখর পরিবেশে মেতে উঠেছে চারপাশ। বাকি আছে শুধু আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়া আর মজাদার খাবার খাওয়া। মজার মজার খাবার দিয়ে আতিথেয়তা করতে না পারলে তো মজাই থাকে না ঈদ আনন্দে। তাই, ঈদের দিন খাবার মেন্যুতে যোগ করুন সহজ ও সুস্বাদু কিছু রেসিপি। রসুই ঘর মাতিয়ে রাখুন সুগন্ধে।
চিকেন আখনি পোলাও
চিকেন আখনি পোলাও

দরজায় কড়া নাড়ছে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। উৎসবমুখর পরিবেশে মেতে উঠেছে চারপাশ। বাকি আছে শুধু আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়া আর মজাদার খাবার খাওয়া। মজার মজার খাবার দিয়ে আতিথেয়তা করতে না পারলে তো মজাই থাকে না ঈদ আনন্দে। তাই, ঈদের দিন খাবার মেন্যুতে যোগ করুন সহজ ও সুস্বাদু কিছু রেসিপি। রসুই ঘর মাতিয়ে রাখুন সুগন্ধে। ঈদে পরিবার-আত্মীয়-পরিজন ও অতিথি আপ্যায়নে কিছু মুখরোচক খাবারের রন্ধন প্রণালি নিয়ে আমাদের এই বিশেষ আয়োজন। রেসিপি দিয়েছেন অপরাজিতা মিতালী

চিকেন আখনি পোলাও

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

১. পোলাও এর চাল-১ কেজি

২. মুরগীর মাংস-২ কেজি

৩. গোটা জিরা-১ টেবিল চামচ

৪. সাদা এলাচ-৮/১০টি

৫. বড় এলাচ-২টি

৬. তেজপাতা ৪টি ৭. দারুচিনি ৫/৬ টুকরা

৮. লবঙ্গ-৭/৮টি

৯. সামান্য পরিমাণ জয়ত্রী

৯. পেঁয়াজ কুচি এক কাপ

১০. কাঁচামরিচ ৮/১০টি

১১. আদা+রসুন বাটা-৩ টেবিল চামচ

১২. গোল মরিচের গুড়া-১ টেবিল চামচ

১৩. লবণ স্বাদ মতো

১৪. ফুড কালার সামান্য পরিমাণ

১৫. পরিমাণ অনুযায়ী পানি

১৬. পুদিনাপাতা ১০/১৫টি

১৭. তেল ৬ টেবিল চামচ

প্রস্তুতপ্রণালী

প্রথম ধাপ: প্রথমে একটি পাত্রে মোটামুটি ৩ লিটার পরিমাণ পানি নিয়ে চুলোতে বসাতে হবে। এরপর একে একে গোটা জিরা, সাদা এলাচ, বড় এলাচ, লবঙ্গ, দারুচিনি, তেজপাতা, জয়ত্রী, গোলমরিচ এবং একটি পেঁয়াজ মাঝ বরাবর কেটে পানিতে দিয়ে পানি মাঝারী আঁচে ফুটিয়ে নিতে হবে প্রায় ১৫ মিনিট ধরে। এরপর এই ফুটানো পানি ছেঁকে নিয়ে গোটা মসলা আলাদা করে ফেলতে হবে এবং পানি ঢেকে রাখতে হবে যাতে করে পানি গরম থাকে।

দ্বিতীয় ধাপ: এবার একটি পাত্র চুলায় বসিয়ে এতে তেল দিয়ে দিতে হবে। এরপর পেঁয়াজ কুচি দিয়ে হালকা বাদামী করে ভাজা হয়ে গেলে একে একে আদা, রসুন বাটা, গোল মরিচের গুড়া, কাঁচামরিচ দিয়ে একটু কসিয়ে নিয়ে তাতে মাংস দিয়ে দিতে হবে। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে পরিমাণ মতো লবণ দিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে এবং চুলার আঁচ অবশ্যই মাঝারি রাখতে হবে। মাঝে মাঝে ঢাকনা খুলে নেড়ে দিতে হবে। ১০ মিনিট পর ঢাকনা খুলে দেখা যাবে মোটামুটি পানি বেরিয়েছে। এই পানি শুকিয়ে ফেলার প্রয়োজন নেই। এই অবস্থায় ধুয়ে রাখা এবং পানি ঝরিয়ে রাখা পোলাও এর চাল এবং লবণ দিতে হবে। এবার মশলা দিয়ে ফুটিয়ে রাখা পানি দিয়ে দিতে হবে। মনে রাখবেন পানির পরিমাণ সবসময় চালের দ্বিগুণ হবে। পানি ফুটে উঠে একটু কমে এলে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে- চুলার তাপ যেন অবশ্যই মাঝারি থাকে। ১০ মিনিট পর ঢাকনা খুলে দেখে একটু নেড়ে দিতে হবে। এই অবস্থায় ৪-৬টি গোটা কাঁচামরিচ ও পুদিনাপাতা এবং সামান্য পরিমাণ হলুদ রঙের ফুড কালার নেড়ে-চেড়ে ঢেকে রাখতে হবে আরও ৫-৭ মিনিট। এরপর অতিথি আপ্যায়নে ঈদ আনন্দে মোহনীয় পরিবেশে ঢাকনা খুলে একটি সুন্দর সার্ভিং ডিশে পরিবেশন করুন মজাদার চিকেন আখনি পোলাও।

খাসির শাহী রেজালা

খাসির শাহী রেজালা

উপকরণ:

১. খাসির মাংস-১ কেজি

২. টক দই-১ কাপ

৩. ঘি অথবা তেল পরিমাণ মতো

৪. লবণ পরিমাণ মতো

৫. পেঁয়াজ বেরেস্তা-১ কাপ

৬. পোস্ত বাটা-২ টেবিল চামচ

৭. মিষ্টি দই-১ কাপ

৮. আদা ও রসুন বাটা-২ টেবিল চামচ

৯. ধনে গুড়া-১ টেবিল চামচ

১০. মরিচ গুড়া-১ টেবিল চামচ

১১. হলুদ গুড়া-১ টেবিল চামচ

১২. সাদা এলাচ-৬টি

১২. লবঙ্গ-৮টি

১৩. জয়ত্রী গুড়া অর্ধেক চা-চামচ

১৪. গোল মরিচ-৬/৮ টি

১৫. দারচিনি ৫ টুকরা

১৬. জয়ফল অর্ধেক চা-চামচ

১৭. কাজু বাদাম ও পেস্তা বাদাম ৪ টেবিল চামচ।

১৮. দুধ ১ কাপ।

১৯. কিসমিস-১০/১২টি

২০. আলুবোখারা-৬টি

প্রস্তুত প্রণালী: প্রথমে মিষ্টি দই এর সাথে কাজু বাদাম ও পেস্তা বাদাম দিয়ে ব্লেন্ডারে খুব ভালোভাবে ব্লেন্ড করে পেস্ট করে নিতে হবে। এরপর একটি পাত্রে মাংস নিয়ে তাতে একে একে টক দই, লবণ, মরিচ গুড়া, হলুদ গুড়া, এলাচ, দারুচিনি, গোলমরিচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা, আদা রসুন বাটা, পোস্ত বাটা, তেজপাতা, লবঙ্গ, জয়ত্রী, এবং জয়ফল গুড়া দিয়ে খুব ভালোভাবে হাত দিয়ে মাখিয়ে মাখিয়ে ম্যারিনেট করতে হবে। এবার ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখতে হবে ৩০ মিনিট। পরে চুলায় পাত্র বসিয়ে পরিমাণ মতো তেল বা ঘি দিয়ে হালকা গরম হলে এতে ম্যারিনেট করে রাখা মাংস ঢেলে দিতে হবে। মাঝারি আঁচে রান্না করতে হবে এবং অনবরত নাড়তে হবে। কিছুক্ষণ পর ঢেকে দিতে হবে এবং মাঝেমাঝে ঢাকনা খুলে নেড়ে দিতে হবে। এভাবে প্রায় ২০ মিনিট রান্না করতে হবে। এই অবস্থায় ঢাকনা খুলে দেখা যাবে তেল ভেসে উঠেছে। এখন ১ কাপ দুধ দিতে হবে। আলাদাভাবে কোন পানি দেওয়ার প্রয়োজন নেই। ধীরে ধীরে মাংস সেদ্ধ হয়ে আসবে এবং ঝোল বেশ ঘন হয়ে আসবে। এরপর ৬টি আলুবোখারা দিয়ে দিতে হবে। খুব অল্প আঁচে রান্না করতে হবে। এই পর্যায়ে দই এবং বাদামের পেস্ট দিয়ে দিতে হবে। আরও ১০ মিনিট রান্নার পর দুই চামচ চিনি এবং কিসমিস দিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। চুলা বন্ধ করে কিছুসময় রেখে দিতে হবে। এরপর পছন্দমত সাজিয়ে ঈদে পরিবার-পরিজন-অতিথি আপ্যায়নে পরিবেশন করুন মজাদার খাসির শাহী রেজালা।

রায়তা:

রায়তা উপকরণ: টক দই, বিট লবণ, চিনি, শসা, টমেটো, আপেল, চেরিফল, ধনেপাতা, পুদিনাপাতা।

রায়তা

প্রস্তুত প্রণালী:  প্রথমে টক দই, ধনেপাতা, পুদিনাপাতা একসাথে ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। তারপর একটি আপেল ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নিতে হবে। পরে একটি পাত্রে আপেল, চেরি, শসা এবং টমেটো কুচি নিয়ে তাতে বিট লবণ ও চিনি মিশাতে হবে। এখন এতে তৈরি করে রাখা পেস্ট খুব ভালো করে মিশিয়ে নিলেই হয়ে গেলো সুস্বাদু রায়তা। আপনার পছন্দমত উপকরণ ব্যবহার করে সাজিয়ে নিয়ে পরিবেশন করুন রায়তা। ঈদে অতিথি আপ্যায়নে পোলাও অথবা বিরিয়ানির সাথে রায়তার জুড়ি মেলা ভার।

Comments

The Daily Star  | English

Sundarbans: Bangladesh's shield against cyclones

The coastline of Bangladesh has been hammered by cyclones over and over since time immemorial

14m ago