আনন্দধারা

‘সেক্সি দুর্গা’ পেল এ বছরের রটারডাম চলচ্চিত্র পুরস্কার

মালায়ালম ভাষায় নির্মিত ভারতীয় ছবি ‘সেক্সি দুর্গা’ এ বছরের রটারডাম চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে। সনল কুমার শশীধরন পরিচালিত ছবিটিতে কেরালার সমাজ বাস্তবতার একটি চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।
IFFR
এবছরের রটারডাম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের বিজয়ীরা

মালায়ালম ভাষায় নির্মিত ভারতীয় ছবি ‘সেক্সি দুর্গা’ এ বছরের রটারডাম চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে। সনল কুমার শশীধরন পরিচালিত ছবিটিতে কেরালার সমাজ বাস্তবতার একটি চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

২৫ জানুয়ারি নেদারল্যান্ডেসের রটারডাম শহরে শুরু হওয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব শেষ হয় ৫ ফেব্রুয়ারি। উৎসবের মূল প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে সনল কুমারের ছবিটি জিতে নেয় হিভোস টাইগার সেরা পুরস্কার।

ছবিটি সম্পর্কে বিচারকদের মতামত, প্রতিনিয়ত টেনশন তৈরি করতে পারঙ্গম ‘সেক্সি দুর্গা’। সনল কুমার শশীধরন অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে এবং যথাযথভাবে এই কাজটি করেছেন। সমাজের বহুস্তরে বিন্যস্ত শ্রেণি-লিঙ্গ বিভাজন ও কর্তৃত্বপরায়ণতার গভীরে আলো ফেলেছে এই ছবিটি।

এদিকে, চিলির পরিচালক নাইলস আতাল্লাহর ‘রে’ ছবিটি পেয়েছে বিশেষ জুরি পুরস্কার। ছবিটিকে “দূরদর্শীসম্পন্ন ও উচ্চাভিলাষী” অভিধায় অবিহিত করে বিচারকগণ বলেন, নাইলসের এই দুঃসাহসের প্রতি সংগঠকরা শ্রদ্ধাশীল।

মার্কিন পরিচালক বেরি জেনকিনসের ‘মুনলাইট’ পেয়েছে ভারস্টেনার দর্শক পুরস্কার। এ বছর ড্রামা বিভাগে সেরা ছবি হিসেবে গোল্ডেন গ্লোব পেয়েছে চলচ্চিত্রটি। এ বছরের অস্কারের সেরা ছবির মনোনয়নের তালিকাতেও রয়েছে এটি।

এছাড়াও, সোফি গোয়েতির ‘মাই নাইট উইল ইকো’ পেয়েছে ইম্প্যাক্ট সিনেমা ব্রাইট ফিউচার পুরস্কার। এ বছরের ভিপিআরও ‘বড় পর্দা পুরস্কার’ পেয়েছে ত্রিস্টেন তানের ‘পপ আই’।

সেরা এশীয় ফিকশন ফিচার ফিল্মের পুরস্কার পেয়েছে চীনের রং গুয়াং রং পরিচালিত ‘চিল্ড্রেন আর নট অ্যাফরেড অব ডেথ, চিল্ড্রেন আর নট অ্যাফরেড অব গোস্ট’।

বিজয়ীদের ধন্যবাদ জানিয়ে উৎসব পরিচালক বেরো বেয়ার বলেন, “উৎসবের পরিধি প্রসারিত হয়েছে দেখে আমরা মুগ্ধ। বর্তমান বিশ্ব ব্যবস্থায় আমরা যখন সিনেমার ভিন্ন আঙ্গিকের খোঁজ নিচ্ছি তখন এই উৎসব আমাদের নতুন পথ দেখাচ্ছে।”

রটারডাম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব বিশ্বের অন্যতম দর্শকভিত্তক সেরা চলচ্চিত্র উৎসব। প্রদর্শিত ছবির বৈচিত্র্য দর্শকদের আকৃষ্ট করে বলে রটারডাম হয়ে উঠেছে সাহসী ও অ্যাডভেঞ্চারপ্রিয় পরিচালকদের পছন্দের স্থান।

Comments

The Daily Star  | English