বাণিজ্য

আগস্টে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি কমেছে

গত বছরের আগস্টে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি তার আগের বছরের চেয়ে ৩৬ শতাংশ বেড়েছিল, যা এবার হয়েছে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ।
বাংলাদেশের রপ্তানি আয় ২০২৩
স্টার ফাইল ফটো

শিল্পজাত পণ্য বিশেষ করে তৈরি পোশাক রপ্তানি প্রবৃদ্ধি কমায় চলতি বছরের আগস্টে বাংলাদেশের সামগ্রিক রপ্তানি আয়ের প্রবৃদ্ধি ব্যাপকভাবে কমেছে। গত বছরের আগস্টে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি তার আগের বছরের চেয়ে ৩৬ শতাংশ বেড়েছিল, যা এবার হয়েছে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ।

আজ সোমবার রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) এ তথ্য জানিয়েছে।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের আগস্টে বাংলাদেশের রপ্তানি আয় এসেছে ৪.৭৮ বিলিয়ন ডলার, যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি। গত বছরের আগস্টে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি তার আগের বছরের তুলনায় ৩৬ শতাংশ বেড়েছিল।

এ নিয়ে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রথম ২ মাসে সামগ্রিক রপ্তানি আয় বার্ষিক ৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৯.৩৭ বিলিয়ন ডলার হয়েছে।

দেশের সবচেয়ে বড় রপ্তানি খাত তৈরি পোশাক, গত অর্থবছরের জুলাই-আগস্ট সময়ে এই খাতের রপ্তানি প্রবৃদ্ধি ছিল ২৬ শতাংশ। চলতি অর্থবছরে যা হয়েছে ১২ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে পোশাক রপ্তানি থেকে আয় হয়েছে ৭.৯৯ বিলিয়ন ডলার, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৭.১১ বিলিয়ন ডলার।

এছাড়া চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যের পাশাপাশি পাট ও পাটজাত পণ্যের রপ্তানি আয় কমেছে।

প্রবাসী আয় ও রপ্তানি প্রবৃদ্ধি এমন সময়ে কমতে শুরু করেছে যখন দেশের রিজার্ভ কমছে। গত ৩০ আগস্ট দেশের সামগ্রিক রিজার্ভ ছিল ২৩.০৬ বিলিয়ন ডলার। কারণ, এশিয়ার আটটি দেশের আমদানি বিল পরিশোধে এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নকে ১.২০ বিলিয়ন ডলার দিতে হয়েছে। চলতি সপ্তাহে রিজার্ভ ২৩ বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছিল, গত মাসে বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার আরেকটি প্রধান উৎস প্রবাসী আয় কমেছে। তার এক দিন পরেই রপ্তানি প্রবৃদ্ধির ধীরগতির তথ্য সামনে এলো।

Comments