যতদিন আছি সম্মান ও ভালোবাসা নিয়ে বাঁচতে চাই: সুচরিতা

সুচরিতা সাদাকালো যুগের স্বর্ণালি সিনেমার নায়িকা। তার অভিনীত অনেক সিনেমা দর্শকদের গভীরভাবে নাড়া দিয়েছে। বিশেষ করে সামাজিক সিনেমায় তার সুভিনয়  দর্শকদের হাসিয়েছে, কাঁদিয়েছে এবং আনন্দ দিয়েছে। এদেশের সাড়া জাগানো নায়িকাদের অন্যতম একজন তিনি।
সুচরিতা। ছবি: সংগৃহীত

সুচরিতা সাদাকালো যুগের স্বর্ণালি সিনেমার নায়িকা। তার অভিনীত অনেক সিনেমা দর্শকদের গভীরভাবে নাড়া দিয়েছে। বিশেষ করে সামাজিক সিনেমায় তার সুভিনয়  দর্শকদের হাসিয়েছে, কাঁদিয়েছে এবং আনন্দ দিয়েছে। এদেশের সাড়া জাগানো নায়িকাদের অন্যতম একজন তিনি।

নায়িকা হিসেবে সুচরিতার আবির্ভাব হয় স্বীকৃতি সিনেমায়। পরিচালনা করেন আজিজুর রহমান। শুরু হয় নতুন পথচলা। একটার পর একটা সিনেমা যুক্ত হতে থাকে ক্যারিয়ারে। ১৯৭২ সালে নায়িকা হিসেবে যাত্রা শুরু করে অল্প কয়েক বছরের মধ্যে যাদুর বাঁশী সিনেমা দিয়ে চমক দেখান। যাদুর বাঁশী তাকে এনে দেয় অসম্ভব জনপ্রিয়তা।

ক্যারিয়ারের দীর্ঘ পথচলায় তিনি অনেক সুপারহিট নায়কের বিপরীতে অভিনয় করেছেন। জুটি বেধেছেন নায়ক উজ্জ্বল, জসীম, আলমগীর, সোহেল রানা, ফারুক, ওয়াসিম,ইলিয়াস কাঞ্চনসহ অনেকের সঙ্গে। সামাজিক সিনেমা ছাড়াও রোমান্টিক সিনেমা করেও সফলতা পেয়েছেন।

তার অভিনীত সফল সিনেমা যাদুর বাঁশীতে পাখি চরিত্রের অভিনয় করে সব বয়সী দর্শকদের মন জয় করেন। কথা দিলাম সিনেমায় ময়না চরিত্রটিও তার অভিনয় জীবনের সেরা চরিত্রগুলোর একটি। কাজল লতা সিনেমায় দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করে আজও কাজল ও লতা হিসেবে দর্শকদের হৃদয়ে রয়ে গেছেন।

অন্যদিকে জীবন নৌকা সিনেমায় হাসি চরিত্রটিও তাকে এনে দেয় খ্যাতি। হাঙর নদী গ্রেনেড সিনেমায় বুড়ি চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় করে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যান অভিনেত্রী হিসেবে। যা এখনো তাকে প্রশংসায় ভাসায়।

ফুলেশ্বরী সিনেমায় সুচরিতা অভিনীত ফুলি চরিত্রটি এখনো অনেকের মনে আছে। আঁখি মিলন সিনেমায় আঁখি চরিত্রে অভিনয় করে দারুণভাবে সফলতা পেয়েছেন। ত্রাস সিনেমায়  রোকেয়া চরিত্রটিও তার অভিনয় জীবনকে সমৃদ্ধ করেছে।

দীর্ঘ শিল্পী জীবনে ২ শতাধিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন। ২ বার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। প্রথমবার এই স্বীকৃতি অর্জন করেন চাষী নজরুল ইসলাম পরিচালিত  হাঙর নদী গ্রেনেড সিনেমার অভিনেত্রী হিসেবে। দ্বিতীয়বার এই স্বীকৃতি তার ঘরে আসে মেঘকন্যা সিনেমায় মাদার চরিত্রের জন্য।

চলতি সময়ে সুচরিতা অভিনয় করছেন ছটকু আহমেদ পরিচালিত আহারে জীবন সিনেমায়।

সাদাকালো যুগের সাড়া জাগানো এই নায়িকা বলেন, বহু বছর ধরে সিনেমায় অভিনয় করছি। অভিনয় আমার ভালোবাসা, অভিনয় আমার নেশা। অভিনয় করে একধরণের শান্তি
পাই। এজন্য এখনো অভিনয় আমাকে টানে।

আহারে জীবন ছাড়াও বদিউল আলম খোকন পরিচালিত ৩টি সিনেমায় অভিনয় করছেন
সুচরিতা। তিনি বলেন, সিনেমাটা এখন শখে করি। 

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'আমরা সিনিয়ররা একটু সম্মান আর ভালোবাসা চাই। যতদিন আছি ভালোবাসা ও সম্মান নিয়ে বাঁচতে চাই। আর কোনো চাওয়া নেই। 

মানুষের ভালোবাসা কিভাবে দেখেন? এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, খুব ইতিবাচকভাবে দেখি। একজন শিল্পী হিসেবে মানুষ ভালোবাসে, সম্মান করে এটা তো অবশ্যই ভালো লাগে। এজন্যই তো বলি, যতদিন আছি ভালোবাসা ও সম্মান নিয়ে বাঁচতে চাই।

ঢাকাই সিনেমায় সুচরিতা যাত্রা শুরু হয়েছিল একজন শিশুশিল্পী হিসেবে। সেই সময়ে তার নাম ছিল বেবী হেলেন। যিনি এখন কোটি মানুষের ভালোবাসার অভিনেত্রী সুচরিতা।

Comments

The Daily Star  | English
Will the Buet protesters’ campaign see success?

Ban on student politics: Will Buet protesters’ campaign see success?

One cannot help but note the irony of a united campaign protesting against student politics when it is obvious that student politics is very much alive on the Buet campus

8h ago