বিদ্যুৎ ও জ্বালানি
ঘূর্ণিঝড় হামুন

চট্টগ্রাম-কক্সবাজারের বিদ্যুৎ সংযোগ আগামীকাল বিকেলের মধ্যে স্বাভাবিক হবে: নসরুল হামিদ

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, ঘূর্ণিঝড় হামুনের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা অতিদ্রুত স্বাভাবিক করা হবে। 
ঘূর্ণিঝড় হামুনের প্রভাবে কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে পড়ে। ছবি: স্টার

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, ঘূর্ণিঝড় হামুনের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা অতিদ্রুত স্বাভাবিক করা হবে। 

আগামীকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার মধ্যে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপপ্রধান তথ্য অফিসার মীর মোহাম্মদ আসলাম উদ্দিনের সই করা বিজ্ঞপ্তিতে আজ বুধবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডকে দ্রুত সব লাইন সচল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসময় প্রতিমন্ত্রী গ্রাহকদের একটু ধৈর্য ধরার ও সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, কক্সবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে ৪ লাখ ৫০ হাজার এবং চট্টগ্রাম-১ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে ৪ লাখ ১০ হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছিল। ইতোমধ্যে কক্সবাজারে ৫৫ হাজার এবং চট্টগ্রাম-১ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে ১ লাখ ৩০ সংযোগ স্বাভাবিক করা হয়েছে। 
এতে আরও বলা হয়, প্রায় ৭০০ জন লাইন-ক্রু ১৬৩ গ্রুপে বিভক্ত হয়ে মাঠে কাজ করছেন। এ ছাড়া, নিয়মিত লোকবল ও ঠিকাদারদের পাশাপাশি চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ ও চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ থেকে অতিরিক্ত লোকবল ও ঠিকাদারকে কক্সবাজার জেলায় পাঠানো হয়েছে।
 
ঘূর্ণিঝড় হামুনের প্রভাবে গ্যাস সরবরাহে কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া নেই বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

Comments