‘সবচেয়ে ঠান্ডা মাথার সিরিয়াল কিলার’ নার্স লুসি

ম্যানচেস্টার ক্রাউন কোর্টে ১০ মাসের বিচারের রায়ে লুসিকে সবচেয়ে ঠান্ডা মাথার সিরিয়াল শিশু কিলারদের একজন বলা হয়েছে।
নার্স লুসি লেটবি। ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাজ্যে ৭ নবজাতককে হত্যা ও আরও ৬ নবজাতককে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন এক নার্স। এটিকে 'ব্রিটেনের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ সিরিয়াল কিলারের ঘটনা' বলে সিএনএনের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

ইংল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলে ম্যানচেস্টার ক্রাউন কোর্টের শুনানিতে বলা হয়েছে, ৩৩ বছর বয়সী নার্স লুসি লেটবি তার তত্ত্বাবধানে থাকা শিশুদের রক্ত ও পেটে বাতাস প্রবেশ করিয়ে, অতিরিক্ত দুধ খাইয়ে, শারীরিকভাবে নির্যাতন এবং ইনসুলিন দিয়ে বিষ প্রয়োগ করে হত্যা করেছিল।

ম্যানচেস্টার ক্রাউন কোর্টে ১০ মাসের বিচারের রায়ে লুসিকে সবচেয়ে ঠান্ডা মাথার সিরিয়াল শিশু কিলারদের একজন বলা হয়েছে।

২০১৫ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে কাউন্টেস অব চেস্টার হাসপাতালে রাতের শিফটে কাজ করার সময় লুসি এ অপরাধ করেন।

প্রসিকিউটররা জানান, লুসি নিজেকে 'ঈশ্বরের ভূমিকায় দেখতে পছন্দ করতেন'। তিনি শিশুদের ক্ষতি করতেন। পরে সহকর্মীদের বলতেন, শিশুটির শরীর খারাপ হয়েছে। সহকর্মীদের তিনি শিশুদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সতর্ক করে, শিশুর মৃত্যু সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করে নিজেকে 'ঈশ্বর' ভাবতেন।

২০২০ সালে শিশু হত্যার অভিযোগে গ্রেপ্তারের আগেও লুসিকে ২ বার গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তবে অভিযোগ সুনির্দিষ্ট না হওয়ায় তখন তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

তার বাড়িতে তল্লাশির সময়, পুলিশ হাসপাতালের কাগজপত্র এবং একটি হাতে লেখা নোট পেয়েছিল যেখানে লুসি শিশু হত্যার ঘটনায় তার স্বীকারোক্তি ছিল।

প্রসিকিউটররা আরও জানান, হাসপাতালের এক ডাক্তারের সঙ্গে গোপন সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন লুসি। ওই ডাক্তার শিশু ইউনিটের জরুরি চিকিৎসকের দায়িত্ব পালন করতেন। তার মনোযোগ পাওয়ার জন্যও কখনো কখনো লুসি শিশুদের আঘাত করতেন, পরে তিনি ওই চিকিৎসককে ডাকতেন।

রায়ের পর এক যৌথ বিবৃতিতে আদালত জানায়, আমাদের শিশুদের যত্ন নেওয়ার দায়িত্ব ছিল যে নার্সের কাঁধে তিনিই তাদের ক্ষতি করেছেন।

আগামী ২১ আগস্ট ম্যানচেস্টার ক্রাউন কোর্টে লেটবিকে সাজা দেওয়া হবে।

Comments

The Daily Star  | English

Broadband internet restored in selected areas

Broadband internet connections were restored on a limited scale yesterday after 5 days of complete countrywide blackout amid the violence over quota protest

4h ago