নাটোর সার্কিট হাউসে আগুনে ভিআইপি কক্ষ পুড়ে ছাই

মশার কয়েল বা সিগারেটের আগুন থেকে ঘটনার সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে।
আগুনে প্রায় তিন লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। ছবি: স্টার

নাটোর সার্কিট হাউসে আগুন লেগে তিনতলার একটি ভিআইপি কক্ষ পুড়ে গেছে। আজ শনিবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নাটোর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. ফিরোজ কুতুবী দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মশার কয়েল বা সিগারেটের আগুন থেকে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। ভোররাতে জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) সহকারী কমিশনার মো. রাশেদুল ইসলামের ফোনে আগুন লাগার খবর পেয়ে নাটোর স্টেশনের দুটি ফায়ার ফাইটার ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়।'

পরে প্রায় ৪৫ মিনিটের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের ধারণা, সংস্কার কাজের শ্রমিকদের ব্যবহৃত মশার কয়েল বা সিগারেটের আগুন থেকে ঘটনার সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে। আগুন নেভানোর পর ওই কক্ষে শ্রমিকদের তিনটি প্যান্ট দেখতে পান তারা।

বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়নি বলে নিশ্চিত করেন ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। তারা জানান, আগুনে প্রায় তিন লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

নাটোরের জেলা প্রশাসক আবু নাছের ভূঁঞা ডেইলি স্টারকে বলেন, 'কক্ষটি সংস্কারের জন্য গণপূর্ত বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা ছিল। তারা কাজ শেষ করে আমাদের কক্ষটি এখনো বুঝিয়ে দেয়নি। আগুন কীভাবে লাগলো তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।'

নাটোর গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী অমিত কুমার দেব ডেইলি স্টারকে বলেন, 'কক্ষটিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দে ইন্টেরিয়র ডিজাইনসহ সংস্কার কাজ চলছিল। ঠিকাদারের লোকজন দিনে কাজ করে এবং রাতে দ্বিতীয় তলায় থাকে। আগুনে ভবনের বা কোনো সরকারি মালামালের ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। তবে ঠিকাদারের কিছু মালামাল এবং যন্ত্রপাতি পুড়ে গেছে। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লাগলে আরও বেশি ক্ষতি হতো।'

Comments