অপরাধ ও বিচার

সাবেক সেনা কর্মকর্তা ও নেত্র নিউজের বিরুদ্ধে বরিশালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

রাষ্ট্রবিরোধী অপপ্রচারের অভিযোগে সাবেক সেনা কর্মকর্তা হাসিনুর রহমান ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল নেত্র নিউজের ফেসবুক পেজের অজ্ঞাত নামা অ্যাডমিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বরিশালে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

রাষ্ট্রবিরোধী অপপ্রচারের অভিযোগে সাবেক সেনা কর্মকর্তা হাসিনুর রহমান ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল নেত্র নিউজের ফেসবুক পেজের অজ্ঞাত নামা অ্যাডমিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বরিশালে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সকালে বরিশাল সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করেন বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুদ্দিন আহম্মেদ তারেক। 

আদালতের বিচারক গোলাম ফারুক মামলাটি আমলে নিয়ে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপারকে আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। 

আদালতের বেঞ্চ সহকারী নুরুল ইসলাম কাকন দ্য ডেইলি স্টারকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

বাদী পক্ষের আইনজীবী গোলাম সারওয়ার রাজীব দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'মামলার আসামি হাসিনুর রহমানের বাড়ি কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার নাথের পাথুয়া বিনয়ঘর গ্রামে। বর্তমানে তিনি রাজধানী ঢাকার মিরপুরে বসবাস করছেন। তিনি একজন সাবেক সেনা কর্মকর্তা। মামলার অপর আসামি অনলাইন নিউজ পোর্টাল নেত্র নিউজের ফেসবুক পেজের অ্যাডমিন।'

তিনি আরও বলেন, 'হাসিনুর রহমান একজন সাবেক সেনা কর্মকর্তা হওয়া সত্বেও রাষ্ট্র, সরকার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিরুদ্ধে নানা ধরনের বক্তব্য দিয়ে নেত্র নিউজের মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে। রাষ্ট্র ও সরকারবিরোধী বিভিন্ন ভিডিওসহ পোস্ট ভাইরাল হয় নেত্র নিউজ থেকে। দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করাসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হয়।'

এ ছাড়া মিথ্যা, মানহানিকর, আক্রমণাত্মক এই অপপ্রচারের কারণে দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের মানুষের অনুভূতিতে আঘাত করা হয়েছে বলে মামলার আরজিতে উল্লেখ করেছে বাদী।

Comments

The Daily Star  | English

To Europe Via Libya: A voyage fraught with peril

An undocumented Bangladeshi migrant worker choosing to enter Europe from Libya, will almost certainly be held captive by armed militias, tortured, and their families extorted for lakhs of taka.

7h ago