অপরাধ ও বিচার

চিত্রনায়িকা শিমু হত্যা: অভিযোগ গ্রহণ করেছে আদালত

চলচ্চিত্র অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুকে হত্যার ঘটনায় স্বামী খন্দকার শাখাওয়াত আলিম নোবেল ও তার বন্ধু এসএমওয়াই আব্দুল্লাহ ফরহাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ গ্রহণ করেছে ঢাকার একটি আদালত।
রাইমা ইসলাম শিমু। ছবি: সংগৃহীত

চলচ্চিত্র অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুকে হত্যার ঘটনায় স্বামী খন্দকার শাখাওয়াত আলিম নোবেল ও তার বন্ধু এসএমওয়াই আব্দুল্লাহ ফরহাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ গ্রহণ করেছে ঢাকার একটি আদালত।

সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. রাজিব হাসান মামলার নথি ও মামলার অন্যান্য সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ২ আসামির উপস্থিতিতে অভিযোগ গ্রহণের আদেশ দেন।

ম্যাজিস্ট্রেট মামলাটি পরবর্তী ধাপের জন্য ঢাকা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতেও পাঠিয়েছেন।

এর আগে গত ৬ সেপ্টেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক মো. শহীদুল ইসলাম উভয়ের বিরুদ্ধে ঢাকা মুখ্য বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

অভিনেত্রী শিমু কলাবাগানের বাসা থেকে নিখোঁজ হওয়ার পর গত ১৭ জানুয়ারি কেরানীগঞ্জের হযরতপুর ব্রিজের কাছে তার বস্তাবন্দি মরদেহ পাওয়া যায়।

এ ঘটনার পর শিমুর ভাই হারুনুর রশিদ বাদী হয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় তার স্বামী নোবেল ও তার গাড়িচালক এসএমওয়াই ফরহাদসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ দিনের রিমান্ডে নেয়। পরে তারা পৃথক ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা দিয়ে জবানবন্দি দেন।

জবানবন্দিতে নোবেল বলেন, ১৬ জানুয়ারি রাতে ঝগড়ার পর তিনি তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন।

নোবেল সারা রাত মরদেহের সঙ্গেই ছিলেন এবং পরদিন সকালে তার বন্ধু ফরহাদকে তার গ্রিন রোডের বাড়িতে ডাকেন। পরে বন্ধুর সহায়তায় নোবেল কেরানীগঞ্জে মরদেহ ফেলে দেন।

Comments