অপরাধ ও বিচার

১ হাজার পিস ইয়াবা নিয়মিত পেটের ভেতর বহন করতেন তিনি

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম (৩৮)। তিনি ১ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট নিয়মিত পেটের ভেতর বহন করতেন।
শফিকুল ইসলাম
স্কচটেপে মুড়ানো ইয়াবাসহ আটক শফিকুল ইসলাম (ডানে) ও বাবুল মিয়া। ছবি: সংগৃহীত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম (৩৮)। তিনি ১ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট নিয়মিত পেটের ভেতর বহন করতেন।

গতকাল শনিবার রাত ১০টায় সাভারের আমিনবাজার এলাকায় ইয়াবা কেনা-বেচার সময় সহযোগী বাবুল মিয়াসহ (৩৬) পুলিশের হাতে আটক হন শফিকুল৷ সেসময় তাদের কাছ থেকে ১ হাজার ৮ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে পুলিশ৷

পুলিশ সূত্র দ্য ডেইলি স্টারকে জানায়, মাদক চোরাকারবারি শফিকুল ১ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পেটের ভেতর বহন করতে পারে। স্কচটেপে ১০০ পিস ইয়াবা মুড়িয়ে পোটলা বানিয়ে ১০ পোটলা বিশেষ কায়দায় খেয়ে টেকনাফ থেকে সাভারে আনতো।

সাভার মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ও আমিন বাজার পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মো. হারুন অর রশিদ ডেইলি স্টারকে বলেন, 'কয়েকজন মাদক চোরাকারবারি ইয়াবা কেনা-বেচার জন্য আমিনবাজার চিশতীয়া পাম্পের সামনের রাস্তায় আছে—এমন সংবাদের ভিত্তিতে রাত ১০টার দিকে অভিযান চালিয়ে শফিকুল ইসলাম ও বাবুল মিয়াকে আটক করা হয়। সেসময় শফিকুল ইসলামের কাছ থেকে ৮০১ ও বাবুলের কাছ থেকে ২০৭ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।'

তিনি জানান, টেকনাফের বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম ইয়াবা ট্যাবলেট স্কচটেপে মুড়িয়ে বিশেষ প্রক্রিয়ায় খেয়ে নিয়মিত টেকনাফ থেকে সাভারে নিয়ে আসে। বাবুলের সহায়তায় সেগুলো বিক্রি করে। দীর্ঘদিন ধরেই শফিকুল ইয়াবা চোরাকারবারির সঙ্গে জড়িত। আগেও একবার ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হয়েছিলেন বলে তিনি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।

আটক ২ জনের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়েরের পর আজ রোববার তাদের আদালতে পাঠানো হবে বলেও জানান এসআই হারুন অর রশিদ।

Comments