নোয়াখালীতে ৫ শিশুকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ দম্পতির বিরুদ্ধে

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জেরে নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ছোট ৩ ভাইদের ৫ সন্তানকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে এক দম্পতির বিরুদ্ধে। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের পশ্চিম চরবাটা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জেরে নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ছোট ৩ ভাইদের ৫ সন্তানকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে এক দম্পতির বিরুদ্ধে। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের পশ্চিম চরবাটা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত মমতা বেগম রুপা (৩৫) উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের সাবেক সংরক্ষিত নারী সদস্য। তার স্বামীর নাম নজরুল ইসলাম রিপন। ঘটনার পর থেকে ওই দম্পতি পলাতক।

আহত শিশুরা হলো আশরাফুল ইসলামের ছেলে সাঈদ বিন আশরাফ (১০) সাদ বিন আশরাফ (৫), ফজলে এলাহী রনির মেয়ে লুবাবা খানম জেমি (৭), জহিরুল ইসলামের মেয়ে জেবিন (৯) জাহিন (৫)। তাদেরকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত শিশু সাইদ বিন আশরাফের বাবা আশরাফুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, আমরা ১০ ভাই। বাবা কয়েক মাস আগে বাড়ি ভিটের ৮ গন্ডা জমি ৫০ লাখ টাকা বিক্রি করে কিছু টাকা আমাদের মধ্যে ভাগ করে দেন। বাবা আমাদের যা দিয়েছেন তার চেয়ে বড় ভাই নজরুল ইসলাম রিপনকে বেশিই দিয়েছেন। এর পরও তিনি বাড়ি ছাড়তে রাজি হননি। বিষয়টি নিয়ে আমাদের কলহ চলছিল। রিপন আমাদেরকে গুম-খুনের হুমকি দিচ্ছিলেন। এর জের ধরে শুক্রবার বিকেলে রিপনের স্ত্রী মমতাজ বেগম রুপা পরিকল্পিতভাবে আমাদের ৩ ভাইয়ের ৫ সন্তানকে তার ঘরে ডেকে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেন। শিশুদের চিৎকারে আমরা এগিয়ে গেলে রুপা দরজা খুলে পালিয়ে যান। আহত শিশুদের উদ্ধার করে প্রথমে সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে শুক্রবার রাতে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়।

সার্জারি ওয়ার্ডের ইন-চার্জ সিনিয়র স্টাফ নার্স ঝুমুর ডেইলি স্টারকে বলেন, আহত শিশুদেরকে শুক্রবার রাতে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার সকালে দুই শিশুর শরীরে বিভিন্ন জায়গায় অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।

আশরাফ আরও বলেন, ঘটনার পর রুপা ছুরি দিয়ে তার নিজের হাত কেটে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে রাতে ভর্তি হয়ে ভোরে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান। এই ঘটনায় আমরা মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

আহত লুবাবা খামন জেমির মা ঝর্ণা আক্তার ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন যারা শিশুদের হত্যার চেষ্টা করে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া উচিত।

রুপার স্বামী রিপনের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ডেইলি স্টারকে বলেন, বাচ্চারা আহত হয়েছে একই সঙ্গে আমার স্ত্রীও আহত হয়েছেন। তার বাম হাতের আঙ্গুলে জখম হয়েছে। নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল থেকে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। আমরা ঢাকা যাওয়ার পথে।

চরজব্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেব প্রিয় দাশ ডেইলি স্টারকে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পারিবারিক সম্পত্তির বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত নারী নিজেও তার ছোরার আঘাতে জখম হয়েছেন।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Horror abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital

1h ago