অপরাধ ও বিচার

স্ত্রী হত্যার ৬ বছর পর স্বামী গ্রেপ্তার

গাজীপুরের টঙ্গীতে ‘পারিবারিক কলহের জেরে’ স্ত্রী শিল্পী আক্তার শিলাকে (২২) হত্যার ৬ বছর পর স্বামী শফিকুল ইসলাম স্বপনকে (৩২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।
গ্রেপ্তার শফিকুল ইসলাম স্বপন (৩২)। ছবি: সংগৃহীত

গাজীপুরের টঙ্গীতে 'পারিবারিক কলহের জেরে' স্ত্রী শিল্পী আক্তার শিলাকে (২২) হত্যার ৬ বছর পর স্বামী শফিকুল ইসলাম স্বপনকে (৩২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

স্বপন মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার কমলাপুর গ্রামের মৃত সিরাজ উদ্দিনের ছেলে। গত রোববার ভোরে জেলার জয়দেবপুর থানার লুটিয়ারচালা গুচ্ছগ্রাম এলাকার নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর স্বপন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

হত্যাকাণ্ডের শিকার শিলা গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার প্রহ্লাদপুর ইউনিয়নের মরিচারচালা গ্রামের সোলেমানের মেয়ে।

আজ সোমাবার দুপুরে গাজীপুর পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান এ তথ্য জানান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গাজীপুর পিবিআইয়ের উপপরিদর্শক (এসআই) জামাল উদ্দিন জানান, নিহত শিলা ২০১৬ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে মরিচারচালা গ্রামের তার খালার বাড়ি থেকে বের হন। ১০ দিন পর  টঙ্গীর উত্তর দত্তপাড়া টেকবাড়ী এলাকার একটি পরিত্যাক্ত ঘর থেকে শিল্পীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় শিলার খালা বেবী বেগম বাদী হয়ে টঙ্গী থানায় মামলা একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

তদন্ত কর্মকর্তার ভাষ্য, জিজ্ঞাসাবাদে আসামি স্বপন শিলাকে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তিনি জানান, শিলা মাদকসহ বিভিন্ন উশৃঙ্খল কর্মকান্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকায় তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া বিবাদ লেগে থাকত। ২০১৬ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে আবার ঝগড়া হলে ওইদিন ভোররাত ৪টায় তিনি শিলাকে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ঘর তালাবদ্ধ করে পালিয়ে যান।

পিবিআই পুলিশ সুপার মাকছুদের রহমান জানান, টঙ্গী থানা পুলিশ মামলাটি তদন্ত করে রহস্য উদঘাটন করতে না পেরে আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। আদালত মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য স্বপ্রণোদিত হয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেন। পরে পিবিআই মামলাটি তদন্ত করে তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় স্বপনকে শনাক্ত করে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ উদঘাটন করে।

Comments

The Daily Star  | English

To Europe Via Libya: A voyage fraught with peril

An undocumented Bangladeshi migrant worker choosing to enter Europe from Libya, will almost certainly be held captive by armed militias, tortured, and their families extorted for lakhs of taka.

4h ago