কনস্টেবল পদে চাকরি পেতে এসপির সই জাল, আটক ২

কনস্টেবল পদে নিয়োগ পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ার পরও পুলিশ সুপারের স্বাক্ষর জাল করে প্রবেশপত্র তৈরির অপরাধে মো. ইয়াছিন হোসেন (১৯) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

কনস্টেবল পদে নিয়োগ পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ার পরও পুলিশ সুপারের স্বাক্ষর জাল করে প্রবেশপত্র তৈরির অপরাধে মো. ইয়াছিন হোসেন (১৯) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

জালিয়াতিতে সহযোগিতা করায় ওমর ফারুক (২৬) নামে আরও একজনকে আটক করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চাঁদপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের পরিদর্শক (ডিআইও-১) মনিরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, এদিন সকালে ইয়াছিনকে আটকের পর তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিকেলে ওমর ফারুককে আটক করা হয়। ইয়াছিনের বাড়ি শাহরাস্তি উপজেলার নাহারা গ্রামে। তার বাবার নাম মো. আবুল হাশেম। ওমর ফারুক হাজীগঞ্জ উপজেলার সুহিলপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে।

সূত্র জানায়, আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চাঁদপুর পুলিশ লাইন্স মাঠে কনস্টেবল পদে নিয়োগ পরীক্ষা চলাকালে জাল প্রবেশপত্র নিয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন ইয়াছিন। পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদের সই জাল করার বিষয়টি ধরা পড়লে তাকে সে সময় আটক করা হয়। গত ৫ ফেব্রুয়ারি শারীরিক বাছাই পর্বে তিনি উত্তীর্ণ হয়েছিলেন। তবে গতকাল অন্যান্য পরীক্ষায় ইয়াসিন অকৃতকার্য হন।

জিজ্ঞাসাবাদে ইয়াসিন জানান, হাজীগঞ্জ বাজারে কাদির কম্পিউটার নামে একটি দোকান থেকে তিনি কৃতকার্য লেখা সিল তৈরি করিয়েছিলেন। জালিয়াতিতে সহযোগিতা করায় পরবর্তীতে পুলিশ ওমর ফারুককে আটক করে।

পুলিশকে ইয়াছিন জানান, পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ পেতে গত ২ ফেব্রুয়ারি তিনি দালালের সঙ্গে চুক্তি করেছেন। ৩০০ টাকার নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে ৮ লাখ টাকায় চুক্তি হয়। দালালকে অগ্রিম নগদ ৩ লাখ টাকাও দিয়েছেন ইয়াসিন।

পুরো ঘটনায় প্রত্যেকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান মনিরুল ইসলাম।

Comments