মেয়র তাপসের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননা মামলার শুনানি ১৪ আগস্ট

মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননা মামলার শুনানি আগামী ১৪ আগস্ট আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে হবে।
তাপস
শেখ ফজলে নূর তাপস। ফাইল ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননা মামলার শুনানি আগামী ১৪ আগস্ট আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে হবে।

আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম মামলার আবেদন আজ সোমবার পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে শুনানির জন্য এ তারিখ নির্ধারণ করেন।

প্রধান বিচারপতি ও সুশীল সমাজকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করায় সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের (এসসিবিএ) অ্যাড-হক কমিটির সদস্যসচিব শাহ আহমেদ বাদল গতকাল মামলাটি করেন।

তার আইনজীবী মোহাম্মদ মহসেন রশীদ মামলাটি উপস্থাপনের পর বিচারপতি ইনায়েতুর রহিম বলেন, 'রাজনীতিবিদরা বিভিন্ন কর্মসূচিতে অনেক বক্তব্য দেন। আদালত কি এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিতে পারে?'

তিনি আরও বলেন, 'একজন প্রধান বিচারপতি একটি রায় দেওয়ার পর তার কুশপুত্তলিকা পোড়ানো হয়েছিল। সে সময় আদালত অবমাননার কোনো আবেদন করা হয়নি। রায় পক্ষে গেলে তা ভালো বলে ধরা হয়। কিন্তু রায় যদি কারও বিরুদ্ধে যায়, তাহলে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে ধরা হয়। এই সব ধরনের বিষয় অবমাননাকর।'

এ সময় উভয় পক্ষের শতাধিক আইনজীবী আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলায় বলা হয়, শেখ ফজলে নূর তাপস গত ২১ মে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেওয়ার সময় বিচার বিভাগ সম্পর্কে অশালীন, অসম্মানজনক ও বিদ্বেষপূর্ণ মন্তব্য করেছেন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ওই অনুষ্ঠানে তাপস বলেন, 'একজন চিফ জাস্টিসকেও নামিয়ে দিয়েছিলাম।'

বক্তব্যের এক পর্যায়ে তিনি আরও বলেছিলেন, 'যে সব সুশীলরা আমাদের বুদ্ধি দিতে যাবেন, সেই সুশীলদের আমরা বস্তায় ভরে বুড়িগঙ্গা নদীর কালো পানিতে ছেড়ে দেব।'

তাপসের এমন বক্তব্য গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে ২৪ মে তা আপিল বিভাগের নজরে আনেন ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম।

মামলায় তাপসকে সশরীরে আদালতে হাজির হতে এবং এমন মন্তব্যের জন্য তাকে শাস্তি দেওয়ার আবেদন করা হয়েছে।

 

Comments