জামালপুরে দুর্বৃত্তের হামলায় সাংবাদিক আহত

কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন, নাদিমের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক।
নাদিম
গোলাম রব্বানি নাদিম | ছবি: ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় বাংলানিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের জামালপুর প্রতিনিধি গোলাম রব্বানি নাদিম দুর্বৃত্তের হামলায় আহত হয়েছেন।

নাদিম বর্তমানে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. এস এম শহিদুর রহমান দ্য ডেইলি স্টারকে জানিয়েছেন, নাদিমের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক।

'মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মক জখম আছে। রোগীর অবস্থা ক্রিটিক্যাল। আমরা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি, মেডিকেল টেস্টের পরে বিস্তারিত বলা যাবে,' বলেন শহিদুর রহমান।

গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে বকশীগঞ্জ বাজারের পাটহাটি এলাকায় হামলার শিকার হন নাদিম।

তার সহকর্মীরা জানিয়েছেন, পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে বাড়ি ফেরার পথে নাদিমের ওপর দুর্বৃত্তরা হামলা চালায়। এক পর্যায়ে অচেতন হয়ে পড়লে দুর্বৃত্তরা তাকে ফেলে পালিয়ে যায়। স্থানীয় বাসিন্দারা তাকে বকশীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাত ১২টায় নেওয়া হয় জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে।

নাদিমের স্ত্রী মনিরা বেগমের অভিযোগ, 'সংবাদ প্রকাশকে কেন্দ্র করে সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবু অসন্তুষ্ট হয়েছিলেন। তিনি এর আগেও নানাভাবে হেনস্তা করার চেষ্টা করেছেন। তার লোকজনই এই হামলা চালিয়েছে। আমি জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।'

তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মাহমুদুল আলম বাবু। তিনি ডেইলি স্টারকে বলেন, 'আমার সঙ্গে সাংবাদিক গোলাম রব্বানি নাদিমের কোনো শত্রুতা নেই। এই হামলায় আমার কোনো ধরনের সম্পৃক্ততা নেই।'

যোগাযোগ করা হলে বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সোহেল রানা বলেন, 'পুলিশ হাসপাতালে গিয়েছিল, তবে নাদিম অচেতন থাকায় হামলাকারীদের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। হামলাকারীদের চিহ্নিত করতে পুলিশ অনুসন্ধান শুরু করেছে।'

আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন নাদিমের সহকর্মীরা।

Comments

The Daily Star  | English

Israel vows to press on in Gaza after Iran attack

Israel launched dozens of air strikes on Gaza overnight, Hamas said Monday, as the army said it will not be distracted from the war after Iran's unprecedented attack heightened fears of wider conflict

1h ago