বেনজীর ও তার পরিবারের সদস্যদের বিও হিসাব জব্দ

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুঁজিবাজারের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ‘দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বিও অ্যাকাউন্টগুলো জব্দ করেছি।’
বেনজীর আহমেদের বিও হিসাব জব্দ

সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদ ও তার পরিবারের সদস্যদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসাব জব্দ করেছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুঁজিবাজারের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, 'দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বিও অ্যাকাউন্টগুলো জব্দ করেছি।'

কর্মকর্তারা জানান, বিএসইসি ইতোমধ্যে এ তথ্য সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডকে (সিডিবিএল) জানিয়েছে। সিডিবিএল বিও অ্যাকাউন্টের শেয়ার ও অন্যান্য সিকিউরিটিজ হস্তান্তর ও নিষ্পত্তি করে থাকে।

এর আগে, গত সপ্তাহে ঢাকার আদালত সাবেক আইজিপির সম্পদ জব্দের আদেশ দেওয়ার পর বিএসইসির কাছে বিও অ্যাকাউন্ট জব্দের অনুরোধ জানায় দুদক।

বেনজীর আহমেদের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার, অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে দেশে-বিদেশে শত শত কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। এসব সম্পদ তার এবং তার স্ত্রী এবং তিন সন্তানের নামে নিবন্ধিত।

দুদকের নথি অনুযায়ী, পুলিশ ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রধান থাকাকালে সাবেক আইজিপি ও তার পরিবারের সদস্যরা তাদের প্রায় সব জমি কেনেন।

দুদকের নথিতে দেখা যায়, বেনজির ও তার পরিবার ৮৩টি দলিলের মাধ্যমে ১১৪ একর জমি কিনেছিলেন।

নথি অনুযায়ী, বেনজীর পুলিশের মহাপরিদর্শক ও র‌্যাবের মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালনকালে মোট ১১২ একর জমি কিনেছিলেন।

আইজিপি থাকাকালে ২০২০ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত ৫০টি দলিল করে ৬৩ দশমিক ৯৭ একর জমি কেনেন তারা।

এছাড়া র‌্যাবের মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ২০১৬ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে ২৭টি দলিল করে ৪৮ দশমিক ১৫ একর জমি কেনেন।

দুদক আরও জানতে পেরেছে, ২০১৪ সালে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার থাকাকালে পাঁচটি দলিলের মাধ্যমে এক দশমিক ৭৫ একর জমি অধিগ্রহণ করে তার পরিবার। যার বেশির ভাগ জমি তাঁর স্ত্রী জিসান মির্জার নামে রেজিস্ট্রি করা হয়েছিল।

Comments