বাংলাদেশ

১২ বছরের অপেক্ষার পর ৪ সন্তানের জন্ম, বাঁচল না কেউই

সন্তানের জন্য দীর্ঘ এক যুগ অপেক্ষায় থাকার পর নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার নিখিল দাস ও রিতা রানী দাসের ঘর আলো করে একসঙ্গেই এসেছিল ৪ নবজাতক। কিন্তু জন্মের কিছুক্ষণের মধ্যেই মৃত্যু হয়েছে তাদের।
নাটোর
স্টার ডিজিটাল গ্রাফিক্স

সন্তানের জন্য দীর্ঘ এক যুগ অপেক্ষায় থাকার পর নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার নিখিল দাস ও রিতা রানী দাসের ঘর আলো করে একসঙ্গেই এসেছিল ৪ নবজাতক। কিন্তু জন্মের কিছুক্ষণের মধ্যেই মৃত্যু হয়েছে তাদের।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে বড়াইগ্রাম পৌর শহরের মৌখাড়া বাজারের ঋষিপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এই ৪ নবজাতকের মধ্যে ৩টি ছেলে ও ১টি মেয়ে।

নবজাতকদের বাবা নিখিল দাস জানান, গতকাল রাত ৯টার দিকে তার স্ত্রী রীতা রানী দাসের প্রসববেদনা ওঠে। বাড়িতেই তিনি একটি সন্তান প্রসব করেন। পরবর্তীতে বনপাড়ার আমিনা হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও ৩টি সন্তান প্রসব করেন তিনি। রাত ১টার মধ্যেই একে একে সবার মৃত্যু হয়। আজ দুপুর ১২টার দিকে তাদের স্থানীয় শ্মশানে দাহ করা হয়েছে।

নিখিল দাস আরও জানান, ১২ বছরেও তাদের সংসারে কোনো সন্তান ছিল না। একসঙ্গে ৪ সন্তানের জন্ম হওয়ায় তারা খুশিই ছিলেন। কিন্তু সবার মৃত্যু তাদের সেই আনন্দকে চরম বিষাদে পরিণত করেছে।

আমিনা হাসপাতালের সত্বাধিকারী ডা. আনসারুল হক আমিন বলেন, 'নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই বাচ্চাগুলোর জন্ম (প্রিম্যাচিউর বার্থ) হয়েছিল, যে কারণে কেউ বাঁচেনি।'

Comments