বাংলাদেশ

পারিবারিক কবরস্থানে শায়িত হলেন জাতিসংঘ মিশনে নিহত জাহাঙ্গীর আলম

জাতিসংঘ শান্তি মিশনে দায়িত্ব পালনকালে মাইন বিষ্ফোরণে নিহত সৈনিক জাহাঙ্গীর আলমের (২৬) দাফন তার নিজ গ্রামে সম্পন্ন হয়েছে।
সৈনিক জাহাঙ্গীর আলম। ছবি: সংগৃহীত

নীলফামারীতে পারিবারিক কবরস্থানে শায়িত হলেন মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে জাতিসংঘ শান্তি মিশনে দায়িত্ব পালনকালে মাইন বিষ্ফোরণে নিহত সৈনিক জাহাঙ্গীর আলম।

আজ শনিবার দুপুরে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার দক্ষিণ তিতপাড়া জামে মসজিদে নামাজে জানাজার পর পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় জাহাঙ্গীর আলমকে।

গত ৩ অক্টোবর মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে শক্তিশালী মাইন বিষ্ফোরণে নিহত হন সৈনিক জাহাঙ্গীর আলম।

আজ শনিবার দুপুরে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার দক্ষিণ তিতপাড়া জামে মসজিদে সৈনিক জাহাঙ্গীর আলমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: সংগৃহীত

জানাজার পর সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে নীলফামারী- ১ আসনের সংসদ সদস্য আফতাবউদ্দিন সরকার, ডিমলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বেলায়েত হোসেন ও সেনাবাহিনীর পক্ষে ক্যাপ্টেন তানজিদুল ইসলামসহ অন্যান্যরা বক্তব্য দেন।

সংসদ সদস্য তার বক্তব্যে ডিমলার এই বীর সন্তানের সম্মানে উপজেলা সদরমুখী তার বাড়ির সামনের রাস্তাটি শহীদ জাহাঙ্গীর আলমের নামে নামকরণের ঘোষণা দেন।

দাফনশেষে ক্যাপ্টেন তানজিদুলের নেতৃত্বে সেনাবাহিনীর সদস্যরা গার্ড অফ অনার প্রদান করেন।

সকাল সোয়া এগারোটায় জাহাঙ্গীর আলমের লাশবাহী বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি বিশেষ হেলিকপ্টারে ডিমলা এন বি আর সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অবতরণ করে।

সেখান থেকে সেনাবাহিনীর অ্যাম্বুলেন্সে লাশ তার গ্রামের বাড়িতে নেওয়া হয়।

দক্ষিণ তিতপাড়া গ্রামের লতিফর রহমানের পাঁচ সন্তানের মধ্যে জাহাঙ্গীর চতুর্থ। নিহতের বড়ভাই সেনাবাহিনীর করপোরাল আবু জার রহমান জানান, জাহাঙ্গীর ২০১৬ সালে সেনবাহিনীতে যোগ দেন।

মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে ৩ অক্টোবরের মাইন বিষ্ফোরণে জাহাঙ্গীর আলমসহ তিন জন শান্তিরক্ষী নিহত হন।

নিহত অন্য দুই সৈনিক হলেন- ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার বিজয় নগর উপজেলার কাটিঙ্গা গ্রামের সৈনিক জসিমউদ্দীন ( ৩১) ও সিরাজগঞ্জের বেলকুচী উপজেলার রুয়া গ্রামের সৈনিক শরীফ হোসেন।

 

Comments