‘তৌফিক-ই-ইলাহীর বক্তব্য তার নিজস্ব, দিনের বেলা বিদ্যুৎ বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়নি’

দিনের বেলায় বিদ্যুৎ বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত সরকার গ্রহণ করেনি বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।
হাছান মাহমুদ
হাছান মাহমুদ। ফাইল ছবি

দিনের বেলায় বিদ্যুৎ বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত সরকার গ্রহণ করেনি বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী যেটি বলেছেন সেটি তার ব্যক্তিগত কথা এবং তিনিই এর ব্যাখ্যা দিতে পারবেন, সরকারের এ ধরনের কোনো সিদ্ধান্ত নেই।

আজ সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকরা 'তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী প্রয়োজনে দিনের বেলায় বিদ্যুতের ব্যবহার বন্ধ রাখার পরামর্শ দিয়েছেন' এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে এর জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী খুলনায় বিএনপির শনিবারের সমাবেশ প্রসঙ্গে বলেন, 'গত পরশুদিন বিএনপি খুলনায় সমাবেশ করতে গিয়ে খুলনার নবনির্মিত রেলস্টেশনে ভাঙচুর করেছে, দৌলতপুরে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে। বিএনপি নেতারা বলেছেন যে, বাস-লঞ্চ এগুলো বন্ধ। বাস-লঞ্চের মালিকরা নিজেরাই ধর্মঘট ডেকেছে। এখানে সরকার কিংবা সরকারি দলের কোনো হাত নেই।'

'২০১৩-২০১৪-২০১৫ সালে বিএনপি যেভাবে বাসে, লঞ্চে আগুন দিয়েছিল, জীবন্ত শ্রমিকদের পুড়িয়ে হত্যা করেছিল, দাঁড়িয়ে থাকা বাসে আগুন দিয়ে যেভাবে মানুষ হত্যা করেছিল, এ জন্য স্বাভাবিকভাবেই বাস এবং লঞ্চের মালিক ও শ্রমিকরা উদ্বিগ্ন ছিল এবং সেই সব ও অন্যান্য কারণে তারা ধর্মঘট ডেকেছিল,' বলেন তিনি।

এ সময় হাছান মাহমুদ কিছু সংবাদচিত্র সাংবাদিকদের দেখিয়ে বলেন, 'দেখুন বিএনপির দেওয়া আগুনে বাস, লঞ্চ ও শ্রমিকরা কীভাবে পুড়ে মৃত্যুবরণ করেছে। বিএনপির এই অপরাজনীতির আগুনের কারণেই তারা ধর্মঘট ডেকেছে।'

বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্য 'সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ১০টি আসনও পাবে না'এর জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, '২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে বেগম খালেদা জিয়া বেশ কয়েকবার বলেছিলেন যে, আওয়ামী লীগ ৩০টি আসনও পাবে না। ভাগ্যের এমন নির্মম পরিহাস, ২০০৮ সালের নির্বাচনে বিএনপি প্রথমে ২৯টি আসন পেয়েছিল অর্থাৎ ৩০টির কম। পরবর্তীতে উপনির্বাচনের পর তাদের আসন সংখ্যা বেড়েছিল। আর আওয়ামী লীগ তখন তিন চতুর্থাংশ আসন পেয়ে সরকার গঠন করেছিল।'

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি যাতে সমাবেশ করতে পারে সেজন্য আমরা সহযোগিতা করছি। তিনি বলেন, 'পুলিশ খুলনায় প্রচণ্ড ধৈর্য্যের পরিচয় দিয়েছে। পুলিশের ওপর তারা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করেছে, এরপরও পুলিশ এবং আমাদের নেতাকর্মীরাও ধৈর্য্যের পরিচয় দিয়েছে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এবং জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের সরকারের বিরুদ্ধে কড়া বক্তব্য দিচ্ছেন এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে মন্ত্রী হাছান বলেন, 'আসলে জাতীয় পার্টিকে তো নানা জনে 'বি টিম' বলে, তাই উনারা যে বিরোধী দল এটি দেখানোর জন্য তিনি কিছু কড়াকড়া বক্তব্য রাখছেন, এটি ভালো। আমি আশা করব জাতীয় পার্টির অভ্যন্তরীণ যে গণ্ডগোলগুলো চলছে এগুলো তারা নিরসন করতে পারবে।'

Comments

The Daily Star  | English

International Mother Language Day: Languages we may lose soon

Mang Pu Mro, 78, from Kranchipara of Bandarban’s Alikadam upazila, is among the last seven speakers, all of whom are elderly, of Rengmitcha language.

11h ago