‘কোয়াডে’ যোগদানের বিষয়টি বিআইআইএসএসকে খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে: মোমেন 

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন কৌশলগত জোট ‘কোয়াড’-এ যোগ দেবে কি না সেটা খতিয়ে দেখতে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজকে (বিআইআইএসএস) দায়িত্ব দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
 ‘কোয়াডে’ যোগদানের বিষয়টি বিআইআইএসএসকে খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে: মোমেন
পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। ফাইল ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন কৌশলগত জোট 'কোয়াড'-এ যোগ দেবে কি না সেটা খতিয়ে দেখতে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজকে (বিআইআইএসএস) দায়িত্ব দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বিআইআইএসএস রিসার্চ সম্মেলন ২০২২ শীর্ষক একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এসব কথা জানান। 

অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইনস্টিটিউটকে তার গবেষণা কার্যক্রমের বিষয়ে জোর দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, 'প্রতিষ্ঠানটির ভূমিকা আগের তুলনায় বৃদ্ধি পাবে।'

'সম্প্রতি কোয়াড ও ইন্দো-প্যাসিফিক বিজনেস ফোরাম নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। সমস্যাগুলো বোঝার জন্য আমরা বিআইআইএসএসকে বিষয়টি দেখার জন্য অনুরোধ করেছি।'

মোমেন আরও বলেন, 'তারা ইন্দো-প্যাসিফিক বিজনেস ফোরামের বিষয়ে একটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে, বাংলাদেশ এতে যোগ দেবে কি না সে বিষয়ে বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়েছে... আমরা এ বিষয়ে কাজ করছি।'

'পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় (বিআইআইএসএস) থেকে প্রথাগত গবেষণার বাইরে আরও উদ্ভাবনী গবেষণা কার্যক্রম আশা করছে। আসন্ন বিশ্ব জলবায়ু, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকটের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে যার ভূমিকা আগের চেয়ে বেশি হবে।'

মোমেন বলেন, 'পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে প্রস্তুত।'

বিআইআইএসএসের চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত কাজী ইমতিয়াজ হোসেনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অধিবেশনে স্বাগত বক্তব্য দেন বিআইআইএসএসের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শেখ পাশা হাবিব উদ্দিন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া একটি অনানুষ্ঠানিক কৌশলগত জোট 'চতুর্পক্ষীয় নিরাপত্তা সংলাপ' বা কোয়াডের অংশ।

গত বছরের ২৮ থেকে ২৯ অক্টোবর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারত যৌথভাবে ভার্চুয়ালি চতুর্থ বার্ষিক ইন্দো-প্যাসিফিক বিজনেস ফোরামের (আইপিবিএফ) আয়োজন করে। 

বিআইআইএসএস হলো একটি সংবিধিবদ্ধ সরকারি প্রতিষ্ঠান যা আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি, নিরাপত্তা এবং উন্নয়ন সংক্রান্ত বিষয়ে গবেষণা ও আলোচনার বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়ার পাশাপাশি প্রচারের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত।
 

 

Comments