আমার প্রধান ফোকাস হবে অর্থনৈতিক কূটনীতি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নতুন সরকারের গুরুত্বের প্রধান কেন্দ্রবিন্দু হবে অর্থনৈতিক কূটনীতি এবং ঢাকা পূর্ব ও পশ্চিম উভয় গোলার্ধের দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করে যাবে।
আজ ঢাকায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। ছবি: স্টার

পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নতুন সরকারের গুরুত্বের প্রধান কেন্দ্রবিন্দু হবে অর্থনৈতিক কূটনীতি এবং ঢাকা পূর্ব ও পশ্চিম উভয় গোলার্ধের দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করে যাবে।

হাছান মাহমুদ নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর তার প্রথম অনুষ্ঠানে আজ মূলধারার মিডিয়ার সঙ্গে আলাপচারিতায় বলেন, 'আমি আমার প্রধান ফোকাস হিসাবে অর্থনৈতিক কূটনীতির উপর জোর দেব।'

তিনি বলেন, অর্থনৈতিক কূটনীতির অংশ হিসেবে ঢাকা বিশেষ করে আফ্রিকা এবং দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোর সঙ্গে সম্প্রসারিত অর্থনৈতিক সম্পর্ক অন্বেষণ করতে আগ্রহী।

মাহমুদ বলেন, ক্রমবর্ধমান বিশ্ব মেরুকরণের পটভূমিতে পূর্ব ও পশ্চিম গোলার্ধের দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখা একটি বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।

তবে, তিনি বলেন, বাংলাদেশ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নীতিতেই অটল থাকবে, সবার সাথে বন্ধুত্ব, কারো প্রতি বিদ্বেষ নয়।

মাহমুদ বলেন, 'বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি ও বর্ণনা আছে, আমরা তাদের মূল্যায়ন করি এবং দিনের শেষে আমরা (তাদের সবাইকে নিয়ে) কাজ করব।'

মন্ত্রী বলেন, পূর্ব ও পশ্চিম উভয় দেশগুলো এখন ঢাকার সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ দেখিয়েছে। নতুন সরকার দেশের বাইরের কোনো চাপ অনুভব করছে না।

তিনি বলেন, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ সব দেশের দূত নতুন সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছেন এবং ঢাকার সঙ্গে কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

মাহমুদ বলেন, শেখ হাসিনার প্রধানমন্ত্রীত্বে বাংলাদেশের সঙ্গে পূর্ব এবং পশ্চিম উভয় গোলার্ধের দেশগুলোর সম্পর্ক জোরদার হয়েছে।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন এবং মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) খোরশেদ আলম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Comments

The Daily Star  | English

Inadequate Fire Safety Measures: 3 out of 4 city markets risky

Three in four markets and shopping arcades in Dhaka city lack proper fire safety measures, according to a Fire Service and Civil Defence inspection report.

10h ago