নারায়ণগঞ্জের নাম পরিবর্তন করে ‘ওসমান নগরী’ হলে ভালো হতো: আইভী

নারায়ণগঞ্জে ওসমান পরিবারের কর্মকাণ্ডকে ‘রাজার রাজত্ব’ বলে উল্লেখ করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি নারায়ণগঞ্জ শহরের নাম পরিবর্তন করে ‘ওসমান নগরী দিলে ভালো হয়’ বলেও মন্তব্য করেন।
নগরীর আলী আহাম্মদ চুনকা নগর পাঠাগার ও মিলনায়তনে একটি সাপ্তাহিক পত্রিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গুণীজন সম্মাননা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। ছবি: সংগৃহীত

নারায়ণগঞ্জে ওসমান পরিবারের কর্মকাণ্ডকে 'রাজার রাজত্ব' বলে উল্লেখ করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি নারায়ণগঞ্জ শহরের নাম পরিবর্তন করে 'ওসমান নগরী দিলে ভালো হয়' বলেও মন্তব্য করেন।

শনিবার সন্ধ্যায় নগরীর আলী আহাম্মদ চুনকা নগর পাঠাগার ও মিলনায়তনে একটি সাপ্তাহিক পত্রিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গুণীজন সম্মাননা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, 'আমরা তো নারায়ণগঞ্জের প্রজা। রাজার রাজত্ব আমরা মেনে নিয়েছি। আমরা নিরীহ প্রজা মাঝে মাঝে মাথা চাড়া দিয়ে উঠি, দুয়েকটা কথা বলার চেষ্টা করি। যেমন এইখানে দুয়েকজন বলে গেলেন। দুঃখ, কষ্ট যখন বিশাল আকারে হয়ে যায় তখন প্রতিবাদস্বরূপ কিছু বলে ফেলি। নাহলে আপনাদের কর্তৃত্ব আর নেতৃত্ব মেনে নিয়েই নারায়ণগঞ্জের মানুষ চলছে।'

তিনি আরও বলেন, 'ভবিষ্যতে নারায়ণগঞ্জের রাজধানী কুমিল্লা হয়ে যায় কি না জানি না। নামও পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। নারায়ণগঞ্জের নাম পরিবর্তন করে
ওসমান নগরী হলে বোধহয় বেশি ভালো হতো। এই যে এত অত্যাচার, অবিচার, অন্যায়ের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জবাসীই আবার রুখে দাঁড়িয়েছে। কারণ দীর্ঘদিন যখন রাজা অত্যাচারী হয়ে উঠে তখন প্রজারাও শক্তিশালী হয়ে ওঠে। প্রজারা যে নারায়ণগঞ্জে শক্তিশালী হয়ে উঠেছে তা দেখেছেন।'

নারায়ণগঞ্জ শহরের সড়কগুলোর ফুটপাত হকারদের দখলে- উল্লেখ করে এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সিটি মেয়র। তিনি বলেন, 'নারায়ণগঞ্জের নগরী হকারের নগরী। ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারির কথা মনে আছে নিশ্চয়ই। সেদিন অনেকেই আহত হয়েছিলেন। সেদিন গুলি করা হয়েছিল, মারা যেতে নিয়েছিলাম। আমার কিছু অকুতভয় কর্মী মানবঢাল তৈরি করে বাঁচিয়েছিল। অথচ এই ঘটনায় পুলিশ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী নিজামকে মামলা থেকে খালাস দিয়েছে। এর বিরুদ্ধে আমরা আদালতে নারাজি দেবো।'

প্রশাসনিক কর্মকর্তাদেরও সমালোচনা করেন টানা ৩ বার নির্বাচিত এই সিটি মেয়র। 

তিনি বলেন, 'ইলেকশন সামনে আসলে জনগণের ভোট পাওয়ার আশায় অনেকের টনক নড়ে। এই শহর থেকে লাখ-কোটি টাকা মানুষজন নিয়ে যাচ্ছে। এই শহর থেকে সরকারের কর্মকর্তা থেকে শুরু করে এমন কেউ নাই যে টাকা নেয় না। এটা তো ওপেন সিক্রেট।'

নারায়ণগঞ্জের সাবেক এসপি (বর্তমানে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ প্রধান) হারুন অর রশীদের কথা উল্লেখ করে ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, 'নারায়ণগঞ্জের মানুষ এসপি হারুনকে সিংহাম উপাধি দিয়েছে কারণ তিনি সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করেছেন। উনি পুলিশের গতানুগতিক ধারা নারায়ণগঞ্জে ভেঙে দিয়েছিলেন। উনি দলের লোক দেখেন নাই। বহু মানুষের উপকার উনি করে গেছেন।'

'যেই কাজগুলো এমপি, মেয়রের করার কথা, যেই কাজগুলো অনেক সময় ভয়ে বলতে পারি না, সেই কাজগুলো উনি করেছেন বলেই ওনাকে নারায়ণগঞ্জের মানুষ মনে
রেখেছে। ওনার সময় তো ফুটপাতে হকার বসে নাই, অবৈধ ট্রাক বসে নাই। প্রতিটি থানার ওসি সাহেবরা কাজ করেছেন। এখন ভয় পান কেন? এইগুলো ভয় না, সমঝোতা,' বলেন তিনি। 

আইভী বলেন, 'এই শহরে সমঝোতা করে আদান-প্রদান চলে। আর আদান-প্রদান চলে বলেই শহরে কোটি কোটি টাকার চাঁদাবাজি হচ্ছে।'

গণমাধ্যমকর্মীদের এইসব বিষয়ে লেখার অনুরোধ জানান সেলিনা হায়াৎ আইভী। ব্যবসায়ীদের ভয় না পাওয়ারও আহ্বান জানান। তিনি বলেন, 'নারায়ণগঞ্জ শহর ঐতিহ্যবাহী শহর। আমরা আমাদের ঐতিহ্য, আমাদের নিজস্বতা নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই। আমরা কোন রাজার রাজত্ব মেনে নেবো না। একসঙ্গে অনেক কিছু করতে পারবেন, অনেক নাম কামাতে পারেন কিন্তু আপনাদের রাজত্ব আমরা মেনে নেইনি, নেবোও না।'

শনিবার সাপ্তাহিক 'বিষের বাঁশী' পত্রিকার ৩০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গুণীজন সম্মাননা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পত্রিকাটির সম্পাদক সুভাষ সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক)। 
আরও উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হারুন অর রশীদ, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি কবি ও সাংবাদিক হালিম আজাদ, মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান মাসুম, নারায়ণগঞ্জ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. ফজলুল হক রুমন রেজা, দৈনিক যুগের চিন্তা পত্রিকার সম্পাদক মোরসালিন বাবলা, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাফিজ আশরাফ, মডেল গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মাসুদুজ্জামানসহ আরও অনেকে।

 

Comments

The Daily Star  | English
Wealth accumulation: Heaps of stocks expose Matiur’s wrongdoing

Wealth accumulation: Heaps of stocks expose Matiur’s wrongdoing

NBR official Md Matiur Rahman, who has come under the scanner amid controversy over his wealth, has made a big fortune through investments in the stock market, raising questions about the means he applied in the process.

16h ago