বাংলাদেশ

রাষ্ট্রপতি থেকে অবসরের পর কোনো পদে যাওয়া উচিত নয়: আবদুল হামিদ

রাষ্ট্রপতি পদ থেকে অবসরের পর কোনো পদে যাওয়া উচিত নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিদায়ী রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। 
রাষ্ট্রপতি
রোববার বঙ্গভবনে সাংবাদিকদের সম্মানে নৈশভোজে বক্তব্য দিচ্ছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।। ছবি: পিআইডি

রাষ্ট্রপতি পদ থেকে অবসরের পর কোনো পদে যাওয়া উচিত নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিদায়ী রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। 

তিনি বলেছেন, 'এই পদের একটা মর্যাদা সবার রাখা উচিত। আমি বিশ্বাস করি দেশের রাষ্ট্রপতি হওয়ার পরে যত লোভনীয় কিছু হোক না কেন, সেখানে  কোনো অবস্থাতেও যাওয়া ঠিক নয়। এটা করা হলে, দেশের মানুষকে অপমান করা হবে। বেইজ্জতি করা হবে।'

বাংলাদেশের মানুষের সম্মান ক্ষুণ্ণ হয়, অবসরের পর তিনি এমন কোনো কাজে যাবেন না বলেও প্রতিশ্রুতি দেন।

রোববার বঙ্গভবনে সাংবাদিকদের সম্মানে এক নৈশভোজে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এসব কথা বলেন। অবসরের পর নিকুঞ্জের বাড়িতে থাকার ইঙ্গিত দেন তিনি। 

রাষ্ট্রপতি বলেন, 'আমাদের দেশে এরকমও আছে রাষ্ট্রপতি হওয়ার পরে দেখা গেল আবার মন্ত্রী হয়েছেন। আবার রাষ্ট্রপতির থেকে মন্ত্রী হওয়ার পর শুধু এমপিও হয়েছেন। দেখা গেল কেউ এমপি নির্বাচনে নমিশেন না পেয়ে উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যানে দাঁড়ায় গেল। হায়াত থাকলে হয়ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদেও দাঁড়িয়ে যেত। এটা হওয়া উচিত নয়। আমি যে অবস্থাতে চলি না কেন এদেশের মানুষের সম্মান ক্ষুণ্ণ হোক এমন কোন কাজে যাব না।'

তিনি বলেন, 'এই পদের একটা মর্যাদা সবার রাখা উচিত। এখান থেকে বেরিয়ে আর কিছু করা ঠিক নয়। আমি বিশ্বাস করি দেশের রাষ্ট্রপতি হওয়ার পরে যত লোভনীয় কিছু হোক না কেন সেখানে কোনো অবস্থাতেই যাওয়া ঠিক নয়। এটা করা হলে তা দেশের মানুষকে অপমান করা হবে। বেইজ্জতি করা হবে।'

সম্প্রতি প্রকাশিত আত্মজীবনী বইয়ের কিছু উদাহরণও দেন রাষ্ট্রপতি। এ সময় তিনি স্ত্রীকে নিয়ে লেখা একটি অধ্যায়ের প্রসঙ্গও টানেন। বইয়ের ওই অংশটি পুরোপুরি সত্য নয় বলে তার স্ত্রী দাবি করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, 'বইয়ে আমার বিয়ে সংক্রান্ত ব্যাপারে যা লিখেছি তা সব ঠিক নয় বলে দাবি করেছেন আমার স্ত্রী। আর বলেছেন আমি কিছু কিছু কথা লিখিনি।' 

'সমস্যা হচ্ছে কমপ্লিটলি অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ হলে একরকম হয়। দেড়-দুই বছর থেকে জানাশুনা থাকলে যা হয়। সেখানে তো সমস্যা একটু থাকবে। তবে আমি বলতে পারি, আমি যা লিখেছি ঠিক লিখেছি। তার হয়ত পছন্দ না হতে পারে। সুতরাং সঠিক করে আর লেখার কিছু নেই। আমি যা লিখেছি সত্য লিখেছি। তার কাছে আমার এই কথাগুলো ভালো লাগেনি,' যোগ করেন তিনি।

অবসরকালে সাংবাদিকদের বাসায় যাওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, 'মাঝে মধ্যে কেউ এলে আমার সময়টা ভালো কাটবে। আর এখনকার মতো তখন বাঁধাটা থাকবে না। একেবারে ফ্রি স্টাইল হয়ে যাবে। আমিও আপনাদের মতো হয়ে যাব। সমস্যা থাকবে না।'

Comments