ভিসা নীতি আমেরিকার নিজস্ব ব্যাপার, আমাদের কিছু বলার নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিএনপির চলমান রোডমার্চ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কোনো আন্দোলন সংগ্রামে সরকার ভীত নয়।’
দিকে সাতক্ষীরার পুলিশ লাইন্সে ইনডোর প্লে গ্রাউন্ড উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। ছবি: সংগৃহীত

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ভিসা নীতি যুক্তরাষ্ট্রের নিজস্ব ব্যাপার। তাদের দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার সেখানে আমাদের বলার কিছু নেই।

আজ শনিবার দুপুর ২টার দিকে সাতক্ষীরার পুলিশ লাইন্সে ইনডোর প্লে গ্রাউন্ড উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'তারা কাকে ভিসা দেবে, কাকে দেবে না—সেটা তাদের নিজস্ব এখতিয়ার। আমরা মনে করি, তারা কোনো দলকে বা কোনো পক্ষকে বলেনি। তারা বলেছে, এই নির্বাচনের অন্তরায় যারা হবে, যারা এই নির্বাচন বাধাগ্রস্ত করবে কিংবা নির্বাচন যারা প্রভাবিত করার চেষ্টা করবে, ভন্ডুল করার চেষ্টা করবে বা উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করার চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে আমেরিকার এই ভিসা স্যাংশন নীতি প্রয়োগ করা হবে। এটা তাদের আভ্যন্তরীণ ব্যাপার। এতে আমাদের বলার কিছু নেই।'

বিএনপির চলমান রোডমার্চ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'কোনো আন্দোলন সংগ্রামে সরকার ভীত নয়।'

যথাসময়ে বাংলাদেশের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, 'দেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা আফ্রিকার এক দেশে গিয়ে বলেছেন কোনো দেশের উন্নয়ন দেখতে হলে বাংলাদেশ ঘুরে আসুন। কোনো নেতা দেখতে অনুসরণ করতে হলে বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনুসরণ করুন।'

এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'দেশে যখন নির্বাচন হয়। তখন সব দলের কর্মসূচি থাকে ও থাকবে। সবাই তাদের কর্মসূচি মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে চেষ্টা করে। উৎসব মুখর পরিবেশে দেশে নির্বাচন হবে। কোনো ধরনের শঙ্কা কিংবা ভয়ের কারণ নেই। দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলার সক্ষমতা রয়েছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে সুষ্ঠূভাবে। এতে কোনো ধরনের সংশয় নেই।'

দেশকে আরও এগিয়ে নিতে, বিশ্বের দরবারে দেশে ভাবমূর্তি ভালো রাখতে, উন্নয়ন্নের ধারা অব্যাহত রাখতে, শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনতে আওয়ামী লীগকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সেসময় তার সঙ্গে ছিলেন সাতক্ষীরা-৩ আসনের সংসদ সদস্য মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, খুলনা রেঞ্জের উপ মহাপুলিশ পরিদর্শক মঈনুল হক, সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, পুলিশ সুপার কাজী মনিরুজ্জামানসহ আরও অনেকে।

সাতক্ষীরা সার্কিট হাউজে মধ্যাহ্নভোজ শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিকেল ৪টায় কালীগঞ্জের নলতা কলেজ মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক জনসভার উদ্দেশে হেলিকপ্টারে রওনা হন।

 

Comments

The Daily Star  | English

Cyclones fewer but fiercer since the 90s

Though the number of cyclones in general has come down in Bangladesh over the years, the intensity of the cyclones has increased, meaning the number of super cyclones has gone up, posing a greater threat to people in coastal areas, a recent study found

2h ago