পরিবার আবেদন করলে খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানো হবে: আইনমন্ত্রী

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, পরিবার আবেদন করলে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড স্থগিতের মেয়াদ আরও বাড়াবে সরকার ।
আইনমন্ত্রী
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। স্টার ফাইল ছবি

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, পরিবার আবেদন করলে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড স্থগিতের মেয়াদ আরও বাড়াবে সরকার ।

আজ শনিবার তিনি বলেন, 'তারা (খালেদা জিয়ার পরিবার) তার কারাদণ্ড স্থগিতের মেয়াদ বাড়াতে চায় কি না, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে দিন। আমি বলতে পারি, যদি তার পরিবার এই মর্মে আবেদন করে, তাহলে সরকার অবশ্যই তার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়াবে।'

ঢাকার জুডিশিয়াল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে (জেএটিআই) জেলা ও দায়রা জজদের রিফ্রেশার ট্রেনিং কোর্সের উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, সরকার সারা দেশে অর্থঋণ আদালতে ঋণ খেলাপি সংক্রান্ত মামলার নিষ্পত্তিতে গতি আনতে ব্যবস্থা নিয়েছে।

এ বিষয়ে ইতোমধ্যে প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর সঙ্গে কথা হয়েছে এবং আবারও কথা হবে বলে জানান তিনি।

চলতি বছরের ১৬ মার্চ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড স্থগিতের মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ানোর পক্ষে মত দেয় আইন মন্ত্রণালয়।

সেই অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ফৌজদারি কার্যবিধির (সিআরপিসি) ৪০১ (১) ধারা অনুযায়ী তার কারাদণ্ড স্থগিত করে প্রজ্ঞাপন দেয়।

২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকার তার কারাদণ্ড ৬ মাসের জন্য স্থগিত করার পর কারাগার থেকে মুক্তি পান খালেদা।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ঢাকার একটি বিশেষ আদালতে ৫ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হওয়ার পর ২০১৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান খালেদা। পরের বছর ৩০ অক্টোবর হাইকোর্ট এই মামলায় তার আপিল খারিজ করে শাস্তি বাড়িয়ে ১০ বছর করেন।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর ঢাকার আরেকটি বিশেষ আদালত সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে দোষী সাব্যস্ত করে। তাকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

Comments