রাজনীতি

ঝিনাইদহে ছাত্রলীগ ও বিএনপি সংঘর্ষে আহত ১০

ঝিনাইদহে ছাত্রলীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আজ সোমবার দুপুর ১২টায় শহরের পুরাতন ডিসি কোর্ট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
ঝিনাইদেহ ছাত্রলীগের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ। ছবি: সংগৃহীত

ঝিনাইদহে ছাত্রলীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আজ সোমবার দুপুর ১২টায় শহরের পুরাতন ডিসি কোর্ট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাব চত্বরে বিএনপি নেতাকর্মীরা জড়ো হতে থাকে। এসময় মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস উপলক্ষে জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সরকারি কেসি কলেজ থেকে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের পুরাতন ডিসি কোর্টের সামনে পৌঁছালে অপর দিক থেকে আসা বিএনপির মিছিলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। একপর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষ হয়। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও ভাঙচুর করা হয়। পরে ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে উভয়পক্ষকে ছত্রভঙ্গ পুলিশ।

জেলা বিএনপি সভাপতি এম এ মজিদ দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে বিএনপি ঝিনাইদহ স্টেডিয়ামের সামনে থেকে শান্তিপূর্ণ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের পুরাতন ডিসি কোর্টের কাছে পৌঁছালে ছাত্রলীগ হামলা করে। এতে আমাদের ১০ নেতাকর্মী আহত হয়েছে।'

তিনি আরও বলেন, 'ঝিনাইদহ জেলা বিএনপি পার্টি অফিসে হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ।'

ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আল ইমরান বলেন, 'বিএনপির মিছিল থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তি করা হয়। ছাত্রলীগ নিষেধ করলে একপর্যায়ে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তবে, এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।'

ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. সোহেল রানা বলেন, 'পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এরপর ২ পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে, এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি বা মামলাও হয়নি।'

Comments